মুক্তি পেয়েছে তমা’র ‘চল পালাই’

সিলনিউজটুয়েন্টিফোরডটকম ::: আজ সারাদেশে মুক্তি পেয়েছে দেবাশীষ বিশ্বাস পরিচালিত ‘চল পালাই’ ছবিটি। দেশের প্রায় ৭০টি প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি দেওয়া হয়েছে।ছবিটিতে সোনিয়া চরিত্রে অভিনয় করেছেন তমা মির্জা।সঙ্গে আছেন দুই নায়ক শিপন ও শাহরিয়াজ।তমা বলেন, ছবিটির শেষ পর্যন্ত না দেখলে বোঝা যাবে না, দুজনের মধ্যে কার সঙ্গে সোনিয়া পালায়।একটা ভিন্ন ধরনের গল্পের মধ্য দিয়ে চমৎকার এগিয়েছে ছবিটি।

ছবিটি নিয়ে তাঁর প্রত্যাশা কতটুকু? জানতে চাইলে বড় পর্দার এ অভিনেত্রী বলেন, এই ছবি নিয়ে প্রত্যাশা অনেকটাই জুয়ার টেবিলের মতো।দর্শকের কাছে ভালো লাগতেও পারে, আবার না-ও পারে।কিন্তু ভালো লাগার অনেক উপাদানই আছে ছবিটিতে।

তমা মির্জা

তবে ছবিটির বাজেটের কারণে কিছুটা পিছিয়ে পড়ারও আশঙ্কার কথা জানালেন তমা মির্জা। তিনি বলেন, এটি আট-দশটা ছবির মতো বড় বাজেটের ছবি নয়। পরিচালক ভালো, গল্প ভালো, একাধিক ভালো ভালো শিল্পীর ছবি এটি, কিন্তু বাজেট সীমাবদ্ধতার কথা মাথায় রেখে কাজটি শেষ করতে হয়েছে।

ঢাকার পর শেষ ধাপের ১৫ দিন ধরে শুটিং হয়েছে রাঙামাটির মনোরম লোকেশনে। টানা শুটিংয়ে একাধিক অভিজ্ঞতাও হয়েছে তমার।একটি মজার অভিজ্ঞতার কথা ভাগাভাগি করলেন তিনি।তমা বলেন, রমজানের সময় সাধারণত বাবা, মা ও ভাইয়ের সঙ্গে বাসায় ইফতার করি। সেবার প্রথম দিন থেকেই মায়ের সঙ্গে শুটিংয়ে। ইফতারের সময় মন খারাপ থাকত।কয়েক দিন পর ওখানকার এক বন্ধু আমাকে আর মাকে তাদের বাসায় দাওয়াত করে।আমরা তার বাসায় গিয়ে দরজা দিয়ে ঢুকতেই দেখি বাবা দাঁড়িয়ে। আমি তো অবাক! পরে জানলাম, আমার ওই বন্ধু আমাকে সারপ্রাইজ দেওয়ার জন্যই আমাদের না জানিয়ে এ কাজটি করেছে।

এদিকে ছবিটির সফলতা-ব্যর্থতার ভার দর্শকের ওপর ছেড়ে দিলেন পরিচালক দেবাশীষ বিশ্বাস। বললেন, ভিন্নধারার বাণিজ্যিক ছবি এটি। ভিন্নতা আনতে রাঙামাটির পাহাড়ের দুর্গম পথে পথে কাজটি করেছি।সময় নিয়ে, কষ্ট করে কাজটি করেছি।তবে সব কষ্টের ফলাফল দর্শকের হাতে।আমরা আমন্ত্রণ জানিয়ে গেলাম।

‘চল পালাই’ ছবিতে আরও অভিনয় করেছেন সাদেক বাচ্চু, বড়দা মিঠু, রেবেকা, শিমুল খান, চিকন আলী প্রমুখ।

 সুত্রঃ মাই টিভি 
ফেসবুক মন্তব্য
xxx