নিউজটি পড়া হয়েছে 118

জেরুজালেমকে স্বীকৃতি দেয়ায় মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের বিরুদ্ধে বিক্ষুব্ধ ফিলিস্তিনি নাগরিকরা।

সিলনিউজটুয়েন্টিফোরডটকম ::: রাজধানী হিসেবে জেরুজালেমকে স্বীকৃতি দেয়ায় মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিরুদ্ধে সমালোচনার ঝড় উঠার পর বিক্ষুব্ধ ফিলিস্তিনি নাগরিকরা শুক্রবার ‘বিক্ষোভ দিবসের’ ডাক দিয়েছে। খবর এএফপি’র।

ফিলিস্তিনের এক সিনিয়র কর্মকর্তা বৃহস্পতিবার জানান, দীর্ঘদিনের নীতি পরিবর্তন করায় ফিলিস্তিনে মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্সকে অভিনন্দন জানানো হয়নি। এর মধ্যদিয়ে বিতর্কিত এ নগরীর বিষয়ে দীর্ঘ কয়েক দশকের অস্পষ্ট মার্কিন নীতির অবসান ঘটলো।

এটা নিয়ে হোয়াইট হাউসের পক্ষ থেকে বলা হয়, এ মাসের শেষের দিকে পেন্স ও ফিলিস্তিনি প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাসের মধ্যে পূর্ব নির্ধারিত একটি বৈঠক তারা ‘পাল্টা পদক্ষেপ’ হিসেবে বাতিল করবে।

ট্রাম্পের এমন স্বীকৃতিকে কেন্দ্র করে বৃহস্পতিবার ফিলিস্তিনি ও ইসরাইলি বাহিনীর মধ্যে ব্যাপক সংঘর্ষ ছড়িয়ে পড়ে। এদিকে এমন উত্তেজনাপূর্ণ পরিস্থিতির প্রেক্ষিতে ইসরাইল অধিকৃত পশ্চিম তীরে আরো কয়েকশ’ সৈন্য মোতায়েন করেছে।

ট্রাম্পের এমন ঘোষণায় বিশ্বব্যাপী সমালোচনার ঝড় উঠলেও ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের অনেক প্রশংসা করে বলেন, জেরুজালেমের দীর্ঘদিনের ইতিহাসে তার নাম লেখা থাকবে। তিনি বিশ্বের অন্য দেশগুলোকে ট্রাম্পকে অনুসরণ করতে বলেন।

ইসরাইলি সামরিক বাহিনী জানায়, গাজা সিটিতে এক ভাষণে হামাস নেতা ইসমাইল হানিয়া নতুন করে যুদ্ধের ডাক দিয়েছেন। এর কয়েক ঘণ্টার মধ্যে গাজা উপত্যকার বিভিন্ন এলাকা থেকে গুলির শব্দ শোনা যায়।

গাজা কর্তৃপক্ষ জানায়, ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে জেরুজালেমকে ট্রাম্প স্বীকৃতি দেয়ার প্রতিবাদে গাজার পাশাপাশি পশ্চিম তীরে ব্যাপক বিক্ষোভ প্রদর্শন করা হয়। গাজায় বিক্ষোভ সমাবেশে ইসরাইলি বাহিনীর গুলিতে পাঁচ ফিলিস্তিনি নাগরিক আহত হয়েছে।

ফিলিস্তিনি রেডক্রস জানায়, পশ্চিম তীরে বন্দুকের গুলি বা রাবার বুলেটের আগাতে ২২ জন আহত হয়।

এদিকে রামাল্লাহ’র প্রবেশ পথের একটি নিরাপত্তা ফাঁড়িতে সমবেত হওয়া বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে ইসরাইলি বাহিনী টিয়ার গ্যাস নিক্ষেপ করতে হয়। বাসস 

ফেসবুক মন্তব্য