নিউজটি পড়া হয়েছে 111

রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গা মুসলিমের ওপর সামরিক দমনপীড়ন বন্ধের আহবান জাতিসংঘের।

সিলনিউজটুয়েন্টিফোরডটকম :::: জাতিসংঘের সদস্য দেশগুলো মায়ানমারের রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গা মুসলিমের ওপর সামরিক দমনপীড়ন বন্ধে বৃহস্পতিবার দেশটির কর্তৃপক্ষের প্রতি আহবান জানিয়েছে। চীন ও রাশিয়াসহ কতিপয় আঞ্চলিক প্রতিবেশী দেশের বিরোধিতা সত্ত্বেও গৃহীত একটি প্রস্তাবে এ আহবান জানানো হয়।

জাতিসংঘ সাধারন পরিষদের মানবাধিকার বিষয়ক কমিটি বিশ্বের মুসলিম দেশগুলোর পক্ষ থেকে উপস্থাপিত এ প্রস্তাবকে জোরালো সমর্থন জানায়। ভোটাভুটিতে এ প্রস্তাবের পক্ষে ১৩৫ ভোট এবং বিপক্ষে ১০ ভোট পড়ে। ২৬টি দেশ ভোট দানে বিরত থাকে। জাতিসংঘের সদস্য দেশগুলো জানায়, তারা রোহিঙ্গাদের ওপর মায়ানমারের সামরিক বাহিনীর সহিংসতা এবং তাদের আরো শক্তি প্রয়োগের ব্যাপারে চরমভাবে উদ্বিগ্ন।

ইসলামী সহযোগিতা সংস্থার (ওআইসি) এ খসড়া প্রস্তাবে ত্রাণ কর্মীদের মায়ানমারে প্রবেশের সুযোগ, সকল শরণার্থীর দেশে ফেরার নিশ্চয়তা এবং রোহিঙ্গাদের পূর্ণ নাগরিক অধিকার দিতে সরকারের প্রতি আহবান জানিয়েছে।

প্রস্তাবে জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্টোনিও গুতেরেসকে মায়ানমার বিষয়ক একজন বিশেষ দূতকে নিয়োগ দেয়ার অনুরোধ জানানো হয়েছে। রাশিয়া ও চীনের পাশাপাশি কম্বোডিয়া, ফিলিপাইন, লাওস, ভিয়েতনাম, সিরিয়া, জিম্বাবুয়ে ও বেলারুশ এ প্রস্তাবের বিরুদ্ধে ভোট দেয়। এছাড়া মায়ানমার এ প্রস্তাবের বিপক্ষে ভোট দিয়েছে।

এখন আগামী মাসে পূর্ণ পরিষদে এ প্রস্তাব নিয়ে আলোচনা করা হবে। যদিও এক্ষেত্রে কোন বাধ্যবাধকতা নেই।
উল্লেখ্য, গত আগস্ট মাসের শেষের দিক থেকে মিয়ানমারের সামরিক বাহিনী দেশটি রাখাইন রাজ্যে ব্যাপক দমনপীড়ন শুরু করায় সেখানের ৬ লাখেরও বেশী রোহিঙ্গা মুসলিম পালিয়ে প্রতিবেশী দেশ বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়। বাসস

ফেসবুক মন্তব্য