নিউজটি পড়া হয়েছে 10

চিটাগং ভাইকিংসকে ৫ উইকেটে হারিয়েছে খুলনা টাইটান্স।

সিলনিউজটুয়েন্টিফোরডটকম :::: অধিনায়ক মাহমুদুল্লা আর দক্ষিণ আফ্রিকান রিলি রোসৌ ব্যাটিং নৈপুণ্যে বিপিএলে বৃহস্পতিবার দ্বিতীয় ম্যাচে চিটাগং ভাইকিংসকে ৫ উইকেটে হারিয়েছে খুলনা টাইটান্স।

জয়ের জন্য ১৬১ রানের লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে খেলতে নেমে শুরুটা মোটেই হয়নি খুলনার। দলীয় ১৫ রানেই উইকেট হারায় খুলনা। ব্যক্তিগত ১ এবং দলীয় ১৫ রানে ক্লিঞ্জার আউট হলেও রোসৌর মারমুখি ব্যাটিংয়ে জয়ের পথেই থাকে টাইটান্স। তিন নম্বরে নামা ধিমান ঘোষ মাত্র চার রানে ফিরে গেলেও দমে যাননি রোসৌ। তবে সপ্তম ওভারের পঞ্চম বলে হাফ সেঞ্চুরি থেকে মাত্র ১ রান দূরে থাকতে আউট হন রোসৌ। ২৬ বল মোকাবেলায় পাঁচ বাউন্ডারি ও তিন ওভার বাউন্ডারিতে ব্যক্তিগত ৪৯ ও দলীয় ৬০ রানে পেসার আল আমিন হোসেনের শিকার হন দক্ষিণ আফ্রিকার তারকা এ ব্যাটসম্যান। এরপর নাজমুল হোসেন শান্ত মাত্র ৯ রান করে তানভির হায়দারের শিকার হলে কিছুটা চাপে পড়ে যায় খুলনা। তবে অধিনায়ম রিয়াদ ও আরিফুল হক দলকে জয়ের কক্ষচ্যুত হতে দেননি। ২৪ বলে ৩৪ রান করা আরিফ তাসকিন আহমেদের শিকার হয়ে মাঠ ছাড়ার আগে জয় থেকে মাত্র ১২ রান দূরে ছিল টাইটান্স। তিনটি ওভার বাউন্ডারি হাকান আরিফ। ৩৪ বলে তিন চার ও এক ছক্কায় ৪৮ রানে অপরাজিত থেকে ১০ বল হাতে রেখে দলকে জয়ের বন্দরে পৌঁছে দেন অধিনায়ক। শেষ দিকে ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান ক্রেইগ ব্র্যাথওয়েট ২ বল মোকাকেবলা করে একটি করে বাউন্ডারি ওভার বান্ডিারিতে ১০ রানে অপরাজিত থাকেন।

এর আগে আসরের ১৮তম ম্যাচে টসের বিপরীতে আগে ব্যাটিং করে এনামুল হক বিজয়ের হাফ সেঞ্চুরিতে ভর করে ৫ উইকেটে ১৬০ রান সংগ্রহ করেছে চিটাগং ভাইকিংস। ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুতেই বিপদে পড়ে ভাইকিংস। আগের দুই ম্যাচে রান পাওয়া লুক রঞ্চি এ ম্যাচে ব্যর্থ হয়েছেন। প্রথম ওভারের শেষ বলে ব্যক্তিগত ৩ ও দলীয় ৬ রানে আবু জায়েদের শিকার হন নিউজিল্যান্ডের এ তারকা ব্যাটসম্যান। এরপর অবশ্য আরেক ওপেনার সৌম্য সরকারের সঙ্গে তিন নম্বরে নামা বিজয় দলকে টেনে তোলেন। বিজয়ের সঙ্গে তৃতীয় উইকেট জুটিতে ৯৫ ও ব্যাক্তিগত ৩২ রানে মাহমুদুল্লার শিকার হন সৌম্য। ৪৩ বল মোকাবেলায় ৪টি বাউন্ডারি হাকার তিনি। এরপর বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি বিজয়। ৪৭ বল মোকাবেলায় পাঁচ বাউন্ডারি ও ৩ ওভার বাউন্ডারিতে ৬২ রান করে জায়েদের দ্বিতীয় শিকারে পরিণত হন।

শেষ দিকে আফগানিস্তানের নাজিবুল্লাহ জাদরানের ২৪ ও স্টিয়ান ভ্যান জিলের অপরাজিত ২৩ রানের সুবাদে ১৬০ রানের লড়াকু স্কোর পায় চিটাগং। ১৬ বলে এক বাউন্ডারি ও দুই ওভার বাউন্ডারিতে ২৪ রান করা জাদরান রান আউটের শিকার হন। তবে ভ্যান জিল ১৫ বল মোকাকেবলায় দুই ছক্কায় ২৩ রান করে শেষ পর্যন্ত অপরাজিত থাকেন। খুলনার পক্ষে জায়েদ নির্ধারিত ৪ ওভার বোলিং করে ২৬ রানে নেন ৩ উইকেট। বাসস

ফেসবুক মন্তব্য
Share Button