রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশের প্রশংসা করেছেন সিপিএ সদস্যরা।

সিলনিউজটুয়েন্টিফোরডটকম :::: রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশের ভূয়সী প্রশংসা করেছেন কমনওয়েলথ পার্লামেন্টারি অ্যাসোসিয়েশনের (সিপিএ) সদস্যরা। আজ রোববার সিপিএ’র সাধারণ সভায় রোহিঙ্গাদের পক্ষে একটি রেজুলেশন দাবি করেছেন তারা। সদস্যদের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে এ বিষয়ে আশ্বাস দিয়েছেন সিপিএ চেয়ারপারসন ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী।

বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে বিকেলে সিপিএ সদস্যদের সামনে রোহিঙ্গা পরিস্থিতি তুলে ধরেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী। আলোচনায় ১৮ দেশের সিপিএ সদস্যরা অংশ নেন এবং সিপিএর সাধারণ সভায় রেজুলেশনের দাবি জানান। পরে মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে মিডিয়া কমিটির সদস্য কাজী নাবিল আহমেদ এ তথ্য জানান।

তিনি আরও জানান, রোহিঙ্গা ইস্যুতে সিপিএর যে সকল সদস্য আলোচনায় অংশ নিয়েছে, সবাই একবাক্যে বাংলাদেশের ভূয়সী প্রশংসা করেন। আলোচকরা প্রত্যেকেই এ ঘটনাকে গণহত্যা ও জাতিগত নিধন বলে উল্লেখ করেন। আলোচকরা বলেন, সমস্যা সৃষ্টি হয়েছে মিয়ানমারে, সমাধান মিয়ানমারকেই করতে হবে।

রোহিঙ্গা পরিস্থিতি নিয়ে সিপিএ সদস্যদের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর ব্রিফিংকালে আরও উপস্থিত ছিলেন সিপিএ চেয়ারপারসন ও জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী, সিপিএর সেক্রেটারি জেনারেল আকবর খান, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম।

সিপিএ সদস্যরা দেশে ফিরে নিজ দেশের সংসদে রোহিঙ্গা ইস্যুতে আলোচনা এবং ইস্যুটি সমাধানে মিয়ানমারের উপর যেন চাপ সৃষ্টি করে সে জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন সিপিএ চেয়ারপারসন। মালটা, অস্ট্রেলিয়া, কানাডা, মালয়েশিয়া, পাকিস্তান, উগান্ডাসহ বেশ কয়েকটি দেশ এ আলোচনায় অংশ নেয়।

রোহিঙ্গা ইস্যুতে জাতিসংঘের থার্ড কমিটিতে বাংলাদেশের পক্ষে রেজুলেশন চেয়ে আবেদন করা আছে। সে ক্ষেত্রে বাংলাদেশকে এ বিষয়ে সমর্থন জানানোর জন্য সিপিএ সদস্যদের প্রতি আহ্বান জানান স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী।

কাজী নাবিল আহমেদ জানান, ব্রিফিংয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী রোহিঙ্গা, আরাকান ও রাখাইনের ইতিহাসের পাশাপাশি বর্তমান পরিস্থিতি তুলে ধরেন। এছাড়া সব দেশের কাছ থেকে সহযোগিতা, সমর্থন ও সহমর্মিতা কামনা করা হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন সাবেক তথ্য ও সাংস্কৃতিক বিষয়কমন্ত্রী আবুল কালাম আজাদ, সংসদ সদস্য পঙ্কজ দেবনাথ, ফজিলাতুন্নেসা বাপ্পী, তানভীর ঈমাম।

একুশে

ফেসবুক মন্তব্য
xxx