ইমাম ও মুয়াজ্জিনদের সম্মানী নিয়ে কিছুকথাঃ

ইমাম ও মুয়াজ্জিনদের সম্মানী নিয়ে কিছুকথাঃ

মোহাম্মদ আফজাল খান

ইমাম ও মুয়াজ্জিন এরা সর্বোত্তম ব্যাক্তি।উনারা আমাদের নেতা।মানুষ তাদের কে সম্মান করে কিন্তু এই সম্মানী মানুষ গুলোকে যে সম্মানী দেওয়া হয় তা লজ্জাজনক। কোন মুসল্লি যদি দয়ার বশবর্তী হয়ে তাদের সম্মানী নিয়ে মসজিদ কমিটির সাথে আলাপ করতে যান তখন যে প্রস্তাবগুলো আসে তা নিম্নরুপ—
১!ইমাম মুয়াজ্জিন কে আল্লাহ চালাইবেন।
২!মুটির চাউল সকলে দেয়না।
৩!লিল্লাহ খয়রাতি ভাল আছে।
৪!ইমাম মুয়াজ্জিন এর অভাব নাই।
৫!এর চেয়ে আরো কম টাকায় পাওয়া যাবে সুতারাং এই টাকায় থাকলে থাকুন না হয় চলে যান।

মসজিদ কমিটির পরিচালনায় যারা থাকেন তারা আবার শিক্ষিত জ্ঞানী গুণী ,সরকারী-বেসরকারি চাকুরীজীবী, সমাজ সেবক মানুষ।

আমার প্রশ্ন?
আপনাদের যেভাবে পরিবার পরিজন, মা বাবা ভাই বোন ছেলে মেয়ে আছে, উনাদের তো তারাই আছে,আপনাদের যেভাবে টাকার প্রয়োজন উনাদেরও সেই ভাবে প্রয়োজন।শুধু তারা ইচ্ছে করলেই দুর্নীতির আশ্রয় নিতে পারে না। লজ্জায় কথা বলতে পারেন না,কারন তারা বিনয়ী,নম্র, ভদ্র, সৎ,পরহেজগার, মুত্তাকী, আল্লাহ ওয়ালা।
এই মানুষগুলার সাথে এই বৈষম্যমুলক আচরন করা কী শুভা পায়? জেনে রাখুন নবী কারিম সাল্লাল্ললাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন-
كُلٌكُم راعٍ وَكُلًُكُم مَسۡءُول عَن رَعِيَتِهِ

অর্থাৎ তোমরা প্রত্যেকেই দায়িত্বশীল, আর এই দায়িত্ব সম্পর্কে সবাই কে একদিন জবাব দিতে হবে।
আসুন আমরা আমাদের মনটাকে বড় করি।মন থেকে একবার হলেও তাদের মানবেতর জীবনের কথা ভেবে উদারতার হাত সম্প্রসারিত করি।

খতিব,শৈষ্য ঊড়া জামে মসজিদ,দক্ষিণ সুরমা,সিলেট।

Facebook Comments