খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি।

সিলনিউজটুয়েন্টিফোরডটকম ::: রাজধানীর তেজগাঁও থানার মুক্তিযুদ্ধ, মানচিত্র ও জাতীয় পতাকা অবমাননার মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি হয়েছে। সকালে এই পরোয়ানা জারি করে ঢাকা মুখ্য মহানগর হাকিম আদালত।

এই মামলায় আদালতে হাজির হতে একাধিক সমন দেওয়ার পরও খালেদা জিয়া উপস্থিত না হওয়ায় এই গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হয়।

একই সঙ্গে ১২ই নভেম্বর পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য করেছে আদালত। ২০১৬ সালে খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে আদালতে মামলাটি দায়ের করেন জননেত্রী পরিষদের সভাপতি এ বি সিদ্দিকী। এতে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের মরণোত্তর বিচারও দাবি করা হয়।

এদিকে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার শুনানিতে হাজির না হওয়ায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জামিন বাতিল করে তার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছে আদালত। ঢাকার পঞ্চম বিশেষ জজ আদালতের বিচারক মো. আখতারুজ্জামান এ আদেশ দেন।

একই আদেশে আদালত অপর দু্ই আসামি মাগুরার সাবেক সংসদ সদস্য সালিমুল হক এবং কাজি শরফুদ্দিন আহমেদের জামিন আবেদন নাকচ করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। কাজী সালিমুল হক কামাল ও শরফুদ্দিন আহমেদ ১২ অক্টোবর পর্যন্ত অস্থায়ী জামিনে ছিলেন।

তারা আদালতে হাজির হয়ে জামিনের মেয়াদ বাড়ানোর আবেদন জানালে তা নামঞ্জুর করে তাদেরকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন আদালত। খালেদা জিয়ার আইনজীবী মাসুদ আহমেদ তালুকদার দাবি করেন এই আদেশ ষড়যন্ত্রমূলক এবং রাজনৈতিক। খালেদা জিয়া অসুস্থ। তিনি দেশে ফিরে আইনগতভাবেই এর বিরুদ্ধে অবস্থান নেবেন।

সূত্র: ইন্ডিপেন্ডেন্ট টিভি

ফেসবুক মন্তব্য
xxx