নিউজটি পড়া হয়েছে 142

পদ্মা সেতু দৃশ্যমান হওয়াটা অনেক অপপ্রচার ও অপমানের জবাব : দেশে ফিরে প্রধানমন্ত্রী

সিলনিউজটুয়েন্টিফোরডটকম ::: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, কারো সাহায্যের অপেক্ষায় না থেকে শুধু মানবিক কারণেই রোহিঙ্গাদের পাশে দাঁড়িয়েছে বাংলাদেশ। এখন ফেরত দেয়াসহ রোহিঙ্গাদের সহায়তায় প্রয়োজনীয় সবকিছুই করা হচ্ছে। জাতিসংঘ অধিবেশনে যোগদান শেষে যুক্তরাজ্য হয়ে সকালে দেশে ফিরে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে তিনি একথা বলেন।

এ সময় পদ্মা সেতু প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেন, পদ্মা নদীতে এই সেতুর দৃশ্যমান হওয়া অনেক অপপ্রচার ও অপমানের জবাব।

প্রায় তিন সপ্তাহের বিদেশ সফর শেষে অাজ শনিবার সকাল সাড়ে নয়টায় প্রধানমন্ত্রীকে বহনকারী বিশেষ বিমানটি হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে অবতরণ করে। সেখানে প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানান মন্ত্রিসভার সদস্য, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতা, সহযোগী সংগঠনের নেতাসহ বিশিষ্ট নাগরিকরা। এসময় প্রধানমন্ত্রী তাদের খোঁজখবর নেন।

পরে সংবর্ধনা সভায় প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ যদি এই অবস্থান না নিত তবে হয়ত আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়েরও এতটা দৃষ্টি পাওয়া যেত না। এখন সকলেই সহানুভূতিশীল এবং সকলেই সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছে। আন্তর্জাতিক চাপেই মিয়ানমার সরকার আলোচনার জন্য এগিয়ে এসেছে। আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে সঙ্গে নিয়েই রোহিঙ্গাদের নিজ দেশে ফিরিয়ে দিতে কাজ করছে বাংলাদেশ।

প্রধানমন্ত্রী জানান, রোহিঙ্গা ইস্যুতে প্রতিবেশী দেশটির যুদ্ধের উস্কানি থাকলেও তার সরকার সেটা শান্তির্পণূভাবে সমাধান করেছে।

বাংলাদেশ রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিয়েছে বলেই, বিপন্ন এই জনগোষ্ঠী আজ আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের নজর কেড়েছে বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। শেখ হাসিনা বলেন, কারো সাহায্যের জন্য বসে না থেকে রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিয়ে বাংলাদেশ মানবিক দায়িত্ব পালন করেছে। তাঁর অবর্তমানে পদ্মাসেতুর প্রথম স্প্যান স্থাপন প্রসঙ্গে তিনি বলেন- পদ্মা সেতু বাস্তবায়নের মাধ্যমে মিথ্যা অপবাদের জবাব দিচ্ছে বাংলাদেশ।

প্রধানমন্ত্রী তার বক্তব্যে পদ্মা সেতুতে দুর্নীতির মিথ্যা অভিযোগের বিষয়ে বলেন, দুর্নীতির অভিযোগে পদ্ম সেতুতে অর্থায়ন বন্ধ করেছিল বিশ্বব্যাংক। বিশ্বব্যাংকের যে কর্মকর্তা বিষয়টি নিয়ে বেশি কথা বলেছিলেন এখন তার বিরুদ্ধেই দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে। পদ্মা সেতুর স্প্যান বসানোর ছবি দেখে অনেকটা আবেগাপ্লুত হয়ে গিয়েছিলাম আমি কারণ এটা আমাদের অনেক অপমানের একটা জবাব।

ফেসবুক মন্তব্য
xxx