নাইজারে হামলায় তিন মার্কিন সেনাসহ নিহত ৮ জন।

সিলনিউজটুয়েন্টিফোরডটকম আন্তর্জাতিক ডেস্ক ::: মালির সীমান্তের কাছে নাইজারে এক হামলায় তিন মার্কিন সেনাসহ নিহত হয়েছে ৮ জন। নাইজারের রাজধানী নিয়ামের ১৯৩ কিলোমিটার উত্তরে ওই হামলার ঘটনা ঘটে।

নাইজারের ওই অঞ্চলে জঙ্গি গোষ্ঠী আল-কায়েদার উত্তর আফ্রিকা শাখা এবং তাদের আরেকটি অঙ্গসংগঠন আল মাগরিব দীর্ঘদিন ধরেই সক্রিয়। নাইজেরিয়া ও মালির সীমান্ত জুড়ে তাদের কার্যক্রম ঠেকাতে সম্প্রতি সেখানকার সেনাবাহিনীকে প্রশিক্ষণ দেওয়ার কাজে পাঠানো হয়েছিলো ইউএস আফ্রিকা কমান্ডকে।

নিউইয়র্ক টাইমস বলছে, মার্কিন সেনাবাহিনীর এই বিশেষ দলের তিন জন সৈন্য ছাড়াও ৫ নাইজেরীয় সৈন্যও এই হামলায় নিহত হয়েছে। তবে কাদের হামলায় সৈন্যরা নিহত হয়েছে, এই তথ্য এখনও নিশ্চিত করতে পারেনি মার্কিন কর্তৃপক্ষ।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প লাগ ভেগাস থেকে ফেরার সময় তাকে টেলিফোনে এ ঘটনার কথা জানান হোয়াইট হাউসের চিফ অব স্টাফ জন কেলি।

সাহেলের মরুভূমি অঞ্চলের দরিদ্র ও বিরল জনবসতি এলাকাগুলোতে বিদ্রোহীদের তৎপরতা বাড়ছে। এসব এলাকায় শক্ত অবস্থান গড়ার চেষ্টা করছে জিহাদি গোষ্ঠীগুলো। এসব জিহাদি গোষ্ঠীকে দমন করতে পশ্চিমা সেনাদের সমর্থনে আফ্রিকার নিরাপত্তা বাহিনীগুলো তৎপরতার বাড়ানোর উদ্যোগ নিয়েছে।

ইতোমধ্যে ওই এলাকায় চালানো কয়েকটি হামলার দায় স্বীকার করেছে ‘ইসলামিক স্টেট ইন দ্য গ্রেটার সাহারা’ নামের নতুন একটি জঙ্গিগোষ্ঠী।

বুধবারের হামলায় আইএসের কোনো ভূমিকা থাকার খবরটি নিশ্চিত হলে লিবিয়া থেকে সাহেল অঞ্চলে আইএসের কৌশলগত অবস্থান পরিবর্তনের বিষয়টি সামনে আসবে বলে মনে করেন ‘নর্থ আফ্রিকা রিস্ক কনসাল্টিং’ এর প্রধান জিওফ ডি. পোর্টার।

তিনি আরও বলেন, ‘শক্তিকেন্দ্রটি এখন দক্ষিণে সরে যাবে।’

এই অঞ্চলজুড়ে কয়েকশত সেনা মোতায়েন করে রেখেছে যুক্তরাষ্ট্রের আফ্রিকা কমান্ড। পাশাপাশি আগাদেজ অঞ্চলে একটি বিমানক্ষেত্রসহ নাইজারের সেনাবাহিনীকে গোয়েন্দা তথ্য সংগ্রহ ও নজরদারি বিষয়ে প্রশিক্ষণ ও সমর্থন দিচ্ছে তারা।

সূত্র: সময় টিভি

Facebook Comments