নিউজটি পড়া হয়েছে 7

নবীগঞ্জ পৌর শহরে ওসমানী রোডে ভয়াবহ অগ্নিকান্ড, ৮টি দোকান ভস্মীভূত।

এম,মুজিবুর রহমানঃ নবীগঞ্জ থেকে ॥ নবীগঞ্জ পৌর শহরের ওসমানী রোডে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটেছে। গতকাল শনিবার বিকেল সাড়ে ৩ টার দিকে থানা পয়েন্টে মরহুম আব্দুস সত্তার আজাদের মার্কেটে এ ভয়াবহ অগ্নিকান্ড সংঘটিত হয়। এতে প্রায় কোটি টাকার ক্ষতি সাধিত হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা।

স্থানীয়রা জানান, নবীগঞ্জ শহরে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে দু’টি লেপ তোষকের দোকান, আরএফএল প্লাষ্টিকের দোকানের ষ্টক রুম, একটি সেলুন, ইলেক্ট্রনিক্স এর দোকান, একটি মোবাইল টেলিকমের দোকানসহ ৮টি দোকান সম্পুর্ণ ভস্মিভুত হয়েছে। অগ্নিকান্ডে সর্বস্ব হারিয়ে দিশেহারা হয়ে পড়েছেন ক্ষতিগ্রস্থ ব্যবসায়ীরা। কেউ কেউ ঘটনার পর পর জ্ঞান শুন্য হয়ে পড়ে। অনেক ব্যবসায়ী ব্যাংক ঋন এবং দারদেনা করে ব্যবসা চালিয়ে আসছিল। তারা এখন চোখে শর্ষের ফুল দেখছে।

খবর পেয়ে নবীগঞ্জ দমকল বাহিনীর একদল কর্মী প্রাণপন চেষ্টা করে স্থানীয়দের সহযোগিতায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হন। পরে হবিগঞ্জ থেকেও দমকল বাহিনীর একদল সদস্য ঘটনাস্থলে গিয়ে সহযোগিতা করে।

স্থানীয় লোকজন জানান, শনিবার বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে থানা পয়েন্টের ওই মার্কেটের রাজিব মিয়ার লেপ তুষকের দোকান থেকে আগুনের সুত্রপাত ঘটে। বিদ্যুতের শর্ট সার্কিট থেকে এই ভয়াবহ আগুনের সৃষ্টি হলে মুহুর্তের মধ্যে দাউ দাউ করে আগুনের লেলিহান শিখা চর্তুর দিকে ছড়িয়ে পড়ে। এতে আশপাশের ৮টি দোকান সম্পূর্ণ ভস্মিভুত হয়ে পড়ে। এছাড়া আশপাশের দোকান ও বাসা বাড়িতে আগুন আতংকে ছুটাছুটি করতে গিয়ে কয়েকজন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। পাশের দোকানীরা আগুন আতংকে তাদের ঘর থেকে মালামাল অন্যত্র সরিয়ে নেওয়ার সময় ব্যাপক ক্ষতি সাধিত হয়েছে।

ক্ষতিগ্রস্থ ব্যবসায়ীরা হলেন বাবুল শীলের সেলুনের দোকান, রাজিব মিয়ার লেপ-তোষকের দোকান, গোলাপ মিয়ার লেপ-তোষরে দোকান, অলিউর রহমানের চা-ষ্টল, রাজু মাইকহাউজ, ডাঃ জগদিশ দাশের হোমিও দোকান, শেখ ফরহাদ মিয়ার এ্যালমুনিয়ামের দোকান ও শো রুম, উৎপল দাশের ভুষিমালের দোকান।

ঘটনার খবর পেয়ে হবিগঞ্জ-১ (নবীগঞ্জ- বাহুবল) এলাকার সংসদ সদস্য এমএ মুনিম চৌধুরী বাবু, আওয়ামীলীগ নেতা শাহ নেওয়াজ মিলাদ গাজী, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এডঃ আলমগীর চৌধুরী, ওসি এসএম আতাউর রহমান, পৌর সভার মেয়র ছাবির আহমদ চৌধুরী, ওসি (তদন্ত) ইকবাল হোসেন, বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল জাহান চৌধুরী, প্যানেল মেয়র-১ এটিএম সালাম প্রমূখ নেতৃবৃন্দ অগ্নিকান্ডস্থল পরিদর্শন করেছেন।

ক্ষতিগ্রস্থ ব্যবসায়ী শেখ ফরহাদ মিয়া জানান, তার এ্যালমুনিয়ামের দোকানটি আগুনে পুড়ে যাওয়ায় এখন দিশেহারা। প্রায় ২৫/৩০ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে ওই ব্যবসায়ীর। গোলাপ মিয়া জানায়, এর আগেও ওই মার্কেটে অগ্নিকান্ডে তার ব্যাপক ক্ষতি সাধিত হয়েছিল। পরে দারদেনা করে ব্যবসা শুরু করে। অগ্নিকান্ডের কারনে তার সর্বস্ব হারিয়ে এখন পথে বসার মতো অবস্থা।

নবীগঞ্জ পৌরসভার প্যানেল মেয়র-১ ও আওয়ামীলীগ নেতা এটিএম সালাম জানান, এই অগ্নিকান্ডের খবর পেয়ে তাৎক্ষনিকভাবে স্থানীয় লোকজন, ফায়ার সার্ভিস, পুলিশ প্রশাসনের সহযোগিতায় আগুন নিয়ন্ত্রনে আনা হয়েছে। এতে প্রায় কোটি টাকার ক্ষতি সাধিত হয়েছে। ফলে ওই মার্কেটের ক্ষতিগ্রস্থ ব্যবসায়ীরা সব কিছু হারিয়ে দিশেহারা হয়ে পড়েছেন। তিনি ক্ষতিগ্রস্থ ব্যবসায়ীদের পুণর্বাসনের জন্য সরকারের প্রতি দাবী জানান। পাশাপাশি ক্ষতিগ্রস্থ ব্যবসায়ীদের প্রতি সহানুভুতি প্রকাশ করেন।

নবীগঞ্জ বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুল জাহান চৌধুরী জানান, অগ্নিকান্ডের ঘটনায় ৮টি দোকানে প্রায় এক কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে। তিনি সরকারের কাছে ক্ষতিগ্রস্থদের জন্য সহায়তার আহবান জানান। থানার অফিসার ইনচার্জ এসএম আতাউর রহমান বলেন, একটি লেপ-তোষকের দোকান থেকে আগুনের সুত্রপাত হয়েছে। তবে কি ভাবে আগুন লেগেছে তা নিশ্চিত হওয়ার চেষ্টা চলছে। এতে কোটি টাকার ক্ষতি হবে বলে তিনি জানান।

এম এ মুনিম চৌধুরী বাবু এমপি ক্ষতিগ্রস্থ এলাকা পরিদর্শন শেষে অগ্নিকান্ডের শিকার ব্যবসায়ীদের সাথে মতবিনিময় করে তাদের প্রতি সহমর্মিতা প্রকাশ করেন। তাদের পুর্ণবাসনের ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য সরকারের সংশ্লিষ্ট দপ্তরে আলোচনার আশ্বাস প্রদান করেন।

ফেসবুক মন্তব্য
Share Button