বিশ্বসেরা দশজন মুসলিম সঙ্গীতশিল্পী

সিলনিউজ২৪.কমঃ দ্য টপ টেনস.কম- বিশ্বব্যাপি নানা বিষয় নিয়ে র‌্যাংকিং ভিত্তিক সেরা দশ তালিকা প্রস্তুত ও প্রণয়নকারী একটি অনলাইন পোর্টাল। সম্প্রতি বিশ্বেভ সেভা দশজন মুসলিম সঙ্গীতশিল্পী নির্বাচন নিয়ে একটি গবেষণা জরিপ প্রকাশ করেছে এই পোর্টালটি। মুসলিম সঙ্গীশিল্পীদের নিয়ে এর আগে এমন কোনো জরিপ বা নির্বাচনী প্রতিযোগিতা হয়েছে বলে জানা নেই। দ্য টপ টেনস.কম কর্তৃক পরিচালিত এই জরিপে বিশ্বের সব সেরা মুসলিম সঙ্গীতশিল্পীদের নাম উঠে এসেছে। চলুন তাহলে আর দেরি না করে দ্য টপ টেনস.কমের জরিপটি পড়ি এবং জেনে নেই বিশ্বের সেরা ১০ জন মুসলিম সঙ্গীতশিল্পী কারা…

০১. মাহের জাইন (Maher Zain)। বিশ্বসেরা দশজন মুসলিম সঙ্গীতশিল্পীর তালিকার প্রথমেই রয়েছে তার নাম। মাহের জেইন মূলত সুইডিশ আরঅ্যান্ডবি গায়ক। লেবাননের বংশোদ্ভূত বিখ্যাত গীতিকার এবং সঙ্গীত প্রযোজক। ২০০৯ সালে তিনি ‘দ্যা অ্যালবাম’ নামে তার প্রথম অ্যালবাম প্রকাশ করেছেন। তিনি আশ্চর্যজনক গায়ক, যিনি সত্য সঙ্গীতের সাধনায় নিয়োজিত। তিনি অনেক মানুষকে সাহায্য করেন তিনি একজন সুন্নি মুসলিম।

০২. সামি ইউসুফ (Sami Yusuf)। বিশ্বসেরা দশজন মুসলিম সঙ্গীতশিল্পীর তালিকার দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে তার নাম। তিনি ব্রিটিশ গায়ক-গীতিকার, সুরকার, প্রযোজক। ইরানী আজারবাইজান বংশদ্ভুতের মাল্টি যন্ত্রচালিত সঙ্গীতশিল্পী হিসেবে তিনি বেশি প্রসিদ্ধ। মাত্র ২৩ বছর বয়সে ২০০৩ সালে তার প্রথম অ্যালবাম “আল-মুয়াল্লিম” মুক্তি পায়। এরপর ২০০৫ সালে মুক্তি পায় “আমার উম্মাহ” নামক তাঁর দ্বিতীয় অ্যালবাম। অনেকেই মন্তব্য করেছেন, তিনি বিশ্বের সেরা গায়ক, তার গান মুসলিম হৃদয় স্পর্শ করে যায়।

০৩. মোহাম্মদ রফি (Mohammad Rafi)। বিশ্বসেরা দশজন মুসলিম সঙ্গীতশিল্পীর তালিকার তৃতীয় স্থানে রয়েছে তার নাম। মোহাম্মদ রফি ভারতীয় প্লেব্যাক গায়ক ছিলেন এবং হিন্দি চলচ্চিত্র শিল্পের সবচেয়ে জনপ্রিয় গায়ক। মোহাম্মদ রফির সাথে কোনো সঙ্গীতশিল্পীর কোনো তুলনা হয় না- এমনটাই তার ভক্তদের মন্তব্য। তিনি একজন মহান গায়ক ছিলেন এবং তিনি এখনও শতকোটি মানুষের হৃদয়ে রয়েছেন। মোহাম্মদ রফি সঙ্গীতকে একটি নতুন মাত্রা দিয়েছেন এবং তার গোটা জীবনকে সঙ্গীতে আত্মপ্রকাশ করেছিলেন।

০৪. জয়ান মালিক (Zayn Malik)। বিশ্বসেরা দশজন মুসলিম সঙ্গীতশিল্পীর তালিকার চতুর্থ স্থানে রয়েছে তার নাম। তিনি মূলত একজন ইংরেজ সঙ্গীতশিল্পী এবং গীতিকার। ২০১০ সালে ব্রিটিশ রিয়েলিটি সঙ্গীত প্রতিযোগিতায় এক্স ফ্যাক্টরে একজন একক শিল্পী হিসেবে অডিশন দেওয়ার মাধ্যমে এই জগতে তার অভিষেক। তিনি ১৯৯৩ সালে ১২ জানুয়ারি ব্র্যাডফোর্ড, ইংল্যান্ডে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর পিতার নাম ইয়াসের মালিক। তিনি একজন ব্রিটিশ পাকিস্তানী এবং তার মার নাম ট্রিসিয়া ব্র্যনন মালিক। তিনি একজন ইংরেজ এবং আইরিশ বংশদ্ভুত। বিয়ের পর তিনি ইসলামে ধর্মান্তরিত হন।

০৫. হ্যারিস জে (Harris J)। বিশ্বসেরা দশজন মুসলিম সঙ্গীতশিল্পীর তালিকার পঞ্চম স্থানে রয়েছে তার নাম। তিনি মূলত লন্ডনের একজন যুবক। মাত্র ১৭ বছর বয়সেই এওকিং রেকর্ডসে গান গাওয়ার সুযোগ লাভ করেন হ্যারিস। ইসলামিক গান গেয়ে অল্প কয়েক বছরের মধ্যই সকলের মধ্য জনপ্রিয় হয়ে ওঠেন তিনি। তার প্রথম অ্যালবামের নাম হলো ‘সালামু আলাইকুম’। হ্যারিসের জন্ম ১৯৯৭ সালের ০৫ ফেব্রুয়ারি।

এছাড়া এই তালিকার ষষ্ঠ থেকে দশম স্থানে রয়েছেন- ০৬. এ আর রহমান। ০৭. ইমরান খান। ০৮. ইউসুফ ইসলাম। ০৯. একন। ১০. আবিদা পারভীন।

ফেসবুক মন্তব্য
xxx