সিলেটের সোবহানীঘাটে ছাত্রলীগ কর্মী আসিফ ও শাহীনকে কুপানোর মামলায় সিলেট সরকারি কলেজ শিবিরের সাধারণ সম্পাদকসহ ১১ জন গ্রেফতার।

সিলনিউজটুয়েন্টিফোরডটকম ::: সিলেটের ছাত্রলীগ কর্মী আবুল কালাম আসিফ ও শাহীন আহমদকে কুপানোর মামলায় কোতোয়ালি, বিমানবন্দর থানা পুলিশ পৃথক অভিযান চালিয়ে শিবিরের সিলেট সরকারি কলেজের সাধারণ সম্পাদক ফয়সল আহমদসহ ১১ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

পুলিশ জানায়- গ্রেফতারকৃতদের মধ্যে শিবিরের সাথি, কর্মী ও জামায়াতের দায়িত্বশীল নেতা রয়েছে। এসময় পুলিশ তাদের কাছ থেকে জিহাদী বই ও সাংগঠনিক বিভিন্ন রিপোর্টের খাতা জব্দ করেছে।

কোতোয়ালি থানার সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার সাদেক কাউসার দস্তগীর ও ওসি গৌছুল হোসেনের নেতৃত্বে এসআই মো. ইবাদুল্লাহ, এসআই কমর উদ্দিন, এসআই ফায়াজ উদ্দিন ফয়েজ ও এসআই বেনু চন্দ্র শাহপরাণ থানাধীন শ্যামলী এলাকায় শিবিরের নেতাকর্মীদের দ্বারা পরিচালিত ম্যাসে অভিযান চালিয়ে সিলেট সরকারি কলেজ শিবিরের সাধারণ সম্পাদক ফয়ছল আহমদকে (২২) গ্রেফতার করে। সে বিশ্বনাথের মাহতাবপুর গ্রামের করম আলীর ছেলে।

এছাড়াও ওই ম্যাস থেকে পুলিশ গ্রেফতার করে সরকারি কলেজের শিবিরের সাথী সুনামগঞ্জ জেলার নতুন পাড়া জামালগঞ্জের গিয়াস উদ্দিনের ছেলে তোফায়েল আহমদ (২১), সরকারি কলেজের শিবিরকর্মী গোয়াইঘাটের দমদমা গ্রামের কবির আহমদের ছেলে সেলিম আহমদ (২০) কানাইঘাটের চড়িপাড়া গ্রামের অজই মিয়ার ছেলে রেজাউল করিম (২২), সুনামগঞ্জ ছাতকের আনুজানি গ্রামের মতিউর রহমানের ছেলে ইমদাদ (২১), গোয়াইনঘাটের বহর গ্রামের মবশ্বির আলীর ছেলে কামিল আহমেদ সোহেল (২০) বিয়ানীবাজারের মাতুরা গ্রামের রিমউজ উদ্দিনের ছেলে তারেক উদ্দিন (২২)।

সিলেট কোতোয়ালি থানার সিনিয়র সহকারি পুলিশ কমিশনার সাদেক কাউসার দস্তগীর সাংবাদিক সম্মেলন শেষে জানান- গ্রেফতারকৃত ফয়সল, তোফায়েল ও সেলিমকে ছাত্রলীগ কর্মীদের ওপর হামলার মামলায় গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। তাদেরকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আদালতে ১০ দিনের রিমাণ্ডের আবেদন করা হবে। এছাড়াও অবশিষ্ট শিবিরের ৪ কর্মীর বিরুদ্ধে থানায় আরেক মামলা দায়ের করবে পুলিশ।

অপরদিকে, বিমানবন্দর থানা অভিযান চালিয়ে শিবিরের দু’জনকে গ্রেফতার করেছে। গ্রেফতারকৃতরা শিবিরের দায়িত্বশীল সাথী বলে পুলিশ জানায়।

গ্রেফতারকৃতরা হচ্ছে- বিমানবন্দর থানার বনকলাপাড়া মসজিদ কোয়ার্টারের ভাড়াটিয়া মৃত রফিকুর রহমানের ছেলে আব্দুল্লাহ (২৩) ও বনকলাপাড়া নূরানী-৮২/১৪ নং বাসার মৃত আব্দুল বারীর ছেলে সফি উদ্দিন (২৩)।

এদিকে, দক্ষিণ সুরমা থানা পুলিশ বিশেষ ক্ষমতা আইনের মামলায় জামায়াত নেতাসহ শিবিরের দুজনকে গ্রেফতার করেছে।

গ্রেফতারকৃতরা হচ্ছে- ২৫নং ওয়ার্ড শিবিরের সাবেক সভাপতি ও মহানগর জামায়াতের সদস্য লাউয়াই উমরকবুল গ্রামের মৃত দুলন মিয়ার ছেলে মুহিবুর রহমান (৩২) ও জালালাবাদ থানার কান্দিগাঁও ইউনিয়নের শিবিরের সাহিত্য সম্পাদক গোপাল বড়বাড়ি গ্রামের ইদ্রিস আলীর ছেলে জাহেদ মামুন (২৫)।

দক্ষিণ সুরমা থানার এসআই এসআই শামীম উদ্দিনের নেতৃত্বে এসআই রোকন উদ্দিন, এএসআই সাদিকুর রহমান, এএসআই আব্দুল জলিল অভিযান চালিয়ে তাদেরকে গ্রেফতার করেন।

ফেসবুক মন্তব্য
xxx