বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের পলাতক খুনীদের দেশে ফিরিয়ে আনার ব্যাপারে সন্তোষজনক অগ্রগতি হয়েছে : আইনমন্ত্রী

সিলনিউজটুয়েন্টিফোরডটকম ::: আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের পলাতক খুনীদের দেশে ফিরিয়ে আনার ব্যাপারে সন্তোষজনক অগ্রগতি হয়েছে।

এ মাসের শুরুতে কানাডার হাইকমিশনার বোনু পিরেয়ে লারা-র সঙ্গে আলোচনা প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, তারা পলাতক আসামী নুর চৌধুরীকে দেশে ফিরিয়ে আনার ব্যাপারে আলোচনা করেছেন।

এর আগে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, সরকার বঙ্গবন্ধুর পলাতক ছয় হত্যাকারীর ব্যাপারে তথ্য হালনাগাদ করেছে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধুর যেসব খুনীরা বিভিন্ন দেশে আশ্রয় নিয়েছে, তাদের দেশে ফিরিয়ে আনার ব্যাপারে আইনগত ও কূটনৈতিক প্রচেষ্টা চলছে।

তিনি জানান, এই ব্যাপারে কাজ করতে আইনমন্ত্রীকে প্রধান করে সরকার ২০১০ সালের ২৮ মার্চ একটি টাস্কফোর্স গঠন করে দিয়েছে।ইতোমধ্যেই সরকার যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডায় পলাতক আসামী কর্নেল (বরখাস্ত) খন্দকার আবদুর রশিদ ও মেজর (অব.) নুর চৌধুরীকে দেশে ফিরিয়ে আনতে দুটি ল’ ফার্মকে নিয়োজিত করেছে। এছাড়া জার্মানীতে অবস্থানরত রিসালদার মুসলেউদ্দিনকেও দেশে ফিরিয়ে আনার প্রচেষ্টাও অব্যাহত আছে।

তবে অপর তিন হত্যাকারী লে. কর্নেল (অবসরপ্রাপ্ত) শরিফুল হক ডালিম, মেজর (অব.) রাশেদ চৌধুরী এবং ক্যাপ্টেন আব্দুল মাজেদের অবস্থান সম্পর্কে সরকার নিশ্চিত নয়।

এর আগে, ২০০৯ সালে ১৯ নভেম্বর সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগ ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট স্বপরিবারে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যার দায়ে ১২ জনকে মৃত্যুদন্ড প্রদান করে।

এরপর ২০১০ সালের ২৭ জানুয়ারি মামলার অন্যান্য আসামীদের মধ্যে সৈয়দ ফারুক রহমান, সুলতান শাহরিয়ার রশিদ খান, বজলুল হুদা, এ কে এম মহিউদ্দিন আহমেদ ও মহিউদ্দিন আহমেদের ফাঁসি কার্যকর হয়। অপর হত্যাকারী আজিজ পাশা২০০১ সালে জিম্বাবুয়েতে পলাতক অবস্থায় মারা যায়।

এর আগে দেশে ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টের খুনী এবং বিদেশে লুকিয়ে থাকা সাবেক ছয় সেনা কর্মকর্তার অবস্থান নির্ধারণ ও দেশে ফিরিয়ে আনার ব্যাপারে প্রচারাভিযান শুরু করে। আইনি প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে বর্তমান সরকার দন্ডপ্রাপ্ত হত্যাকারীদের স্থাবর ও অস্থাবর সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত এবং ব্যাংক হিসাব জব্দ করে বলে আইনমন্ত্রী জানান। এছাড়া সরকারের অনুরোধে ইন্টারপোল বঙ্গবন্ধুর হত্যাকারী আসামীদের ধরতে কয়েকটি বিরুদ্ধে রেড ওয়ারেন্ট জারি করে। বাসস

Facebook Comments