প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তায় এসএসএফ-এ শিবির নেতা!

সিলনিউজ২৪.কম: চাঁদপুরের শিবির নেতা নূর মোহাম্মদ এখন প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তার দায়িত্বে এসএসএফ (স্পেশাল সিকিউরিটি ফোর্স) এর কর্মকর্তা হিসেবে নিয়োগ পেয়েছে।

নূর মোহাম্মদের পিতা মৃত জহিরুল হক মাস্টার জেলা জামায়াতের সাবেক নেতা এবং তার ছোট ভাই জেলা জামায়াতের বর্তমান রোকন আবু আবদুল্লা মোহাম্মদ হাসান। তথ্যগুলোর বিষয়ে জেলা গোয়েন্দা শাখা থেকে নিশ্চিত করা হয়েছে।

নূর মোহাম্মদ তার এ সকল তথ্য গোপন করে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এসএসএফ (স্পেশাল সিকিউরিটি ফোর্স) এর কর্মকর্তা হিসেবে চাকুরী নিয়েছেন বলে জানা যায়।

এ বিষয়ে ইতিমধ্যে চাঁদপুর মডেল থানাকে প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর হতে একটি ফ্যাক্স বার্তার মাধ্যমে গত ২৭ এপ্রিল নূর মোহাম্মদের রাজনৈতিক সম্পৃক্ততা যাচাইয়ের জন্য নির্দেশ প্রদান করা হয়।

সে মতে চাঁদপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুল কাইয়ুম এ তদন্ত করার দায়িত্ব দেন এস আই মাহবুব মোল্লাকে।

তিনি দীর্ঘ দিন তদন্ত শেষে জানতে পান নূর মোহাম্মদ তার পরিবারের তথ্য সম্পূর্ণ গোপন রেখে জামায়াতের রাজনৈতিক কর্মকান্ডের সাথে জড়িত থেকে প্রধানমন্ত্রীর এসএসএফ নিরাপত্তা কর্মকর্তা হিসেবে যোগদান করেন।

একটি নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার তদন্তকারী কর্মকর্তা মাহাবুব মোর্শেদ নূর মোহাম্মদের বিষয়ে প্রতিবেদন লিখে প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরে পাঠিয়ে দিয়েছেন।

সে চাঁদপুর শহরের গুয়াখোলা রোডস্থ ৪৭নং বাড়ির পুরান বাজারের ব্যাবসায়ী ও সাবেক জামায়াত নেতা মৃত জহিরুল হক মাস্টারের ছেলে। সে ছাত্রজীবনে শিবিরের রাজনীতির সাথে জড়িত ছিলো বলে পরিবার সূত্রে জানা যায়।

এ বিষয়ে চাঁদপুর মডেল থানা সূত্রে জানা যায়, নূর মোহাম্মদের ভাই বহরিয়া নূরুল হক উচ্চ বিদ্যালয়ের সাবেক বহিস্কৃত প্রধান শিক্ষক আবু আবদুল্লা মোহাম্মদ হাসান।

গত বছর জামাত-বিএনপির জালাও পোড়াও আন্দোলনের সময় আওয়ামী লীগ সরকার পতনের জন্য আন্দোলন করতে দলবল নিয়ে ট্রাক রোড দারুছালাম জামাতের কার্যালয়ে গোপন মিটিং করার সময় মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুল কাইয়ুম সঙ্গীয় ফোর্সসহ অভিযান চালিয়ে নূর মোহাম্মদের ভাই আবু আবদুল্লাহকে গ্রেপ্তার করে।

সারা দেশের ন্যায় চাঁদপুরের জামাত-শিবির সরকার পতনের জন্য ও যুদ্ধাপরাধীদের বাঁচাতে দেশে নৈরাজ্য সৃষ্টি করছে, জামাত নির্মূল করতে সরকার যেদিকে স্বোচ্চার, সেখানে জামাত পরিবারের সদস্য হয়ে নূর মোহাম্মদ প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের এসএসএফ এর কর্মকর্তার দায়িত্বে নিয়োজিত হওয়ায় বিস্ময় প্রকাশ করেছেন সংশ্লিষ্টরা।

ফেসবুক মন্তব্য
xxx