নিউজটি পড়া হয়েছে 164

বিশ্বের অনলাইন কর্মীর দ্বিতীয় বৃহত্তম দেশ এখন বাংলাদেশ।

সিলনিউজটুয়েন্টিফোরডটকম ::: যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, জার্মানি, কানাডা এবং রাশিয়ার মতো দেশকে পেছনে ফেলে বিশ্বের অনলাইন কর্মীর দ্বিতীয় বৃহত্তম উৎস এখন বাংলাদেশ। সারা বিশ্বের মোট অনলাইন শ্রমের ১৬ শতাংশের যোগানদাতা বাংলাদেশ। এই তালিকায় শীর্ষ অবস্থানে রয়েছে প্রতিবেশী দেশ ভারত।

সম্প্রতি অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের এক গবেষণায় এই চিত্র বেরিয়ে আসে। গবেষণা এবং শিক্ষায় বিশ্ববিদ্যালয়টির প্রখ্যাত অক্সফোর্ড ইন্টারনেট ইন্সটিটিউট (ওআইআই) এই গবেষণা পরিচালনা করে। প্রতিষ্ঠানটির ওয়েবসাইটে প্রকাশিত ওই গবেষণার রেখা চিত্রে ভারতের পরেই রয়েছে বাংলাদেশের অবস্থান, এরপরে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

ভারত পৃথিবীর সব থেকে বড় অনলাইন কর্মীর দেশ। মোট অনলাইন কর্মীর ২৪ শতাংশের যোগান দিয়ে শীর্ষ অবস্থানে রয়েছে দেশটি। এরপরেই ১৬ শতাংশ অনলাইন কর্মীর যোগানদাতা বাংলাদেশ। ১২ শতাংশ নিয়ে এই তালিকায় তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। এই তালিকায় পাকিস্তানের অবস্থান চতুর্থ।

ইন্টারনেট ব্যবহারের প্রসার বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে নানা বয়সের মানুষের আউটসোর্সিং কাজে অংশগ্রহণ বৃদ্ধি পায়। এই সংখ্যা এখন প্রতিদিনই বাড়ছে। বিভিন্ন ধরনের অনলাইন কাজের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিকরা সব থেকে বেশি লেখা এবং অনুবাদের কাজ করছেন। ভারতীয় উপমহাদেশের মানুষ সফটওয়্যার উন্নয়ন এবং প্রযুক্তি বিষয় নিয়ে বেশি কাজ করছেন।

চারটি বৃহৎ অনলাইন প্লাটফর্ম ফাইভার, ফ্রিল্যান্সার, গুরু এবং পিপল পার আওয়ার, যারা ক্রেতা-বিক্রেতাদের সংযুক্ত করে দিচ্ছে, তাদের রিয়েল টাইম ডেটার উপর ভিত্তি করে এই রেখা চিত্রটি তৈরি করা হয়েছে বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়।

চলতি বছরের ১-৬ জুলাই বিভিন্ন দেশের অনলাইন ভিত্তিক জনপ্রিয় পেশার তালিকার উপর ভিত্তি করে করা ওই গবেষণা নিয়ে প্রতিবেদন লেখেন অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক ও সহযোগী অধ্যাপক ভিলি লেহডোনভিরতা। অনলাইন প্লাটফর্মে বিভিন্ন দেশের মানুষ বিভিন্ন ধরনের পেশাকে গুরুত্ব দিয়ে থাকেন। সফটওয়্যার ডেভেলপমেন্ট এবং প্রযুক্তির কাজের ক্ষেত্রকে নেতৃত্ব দিচ্ছে ভারতীয় উপমহাদেশ।

সফটওয়্যার ডেভেলপমেন্ট ও প্রযুক্তি, ক্রিয়েটিভ ও মাল্টিমিডিয়া এবং ক্রিটিক্যাল ও ডেটা এন্ট্রি সেক্টরে অবদান রাখার পাশাপাশি বিক্রয় এবং বাণিজ্যিক সহায়তার ক্ষেত্রে অনলাইন কর্মীর সংখ্যায় সব দেশের শীর্ষে রয়েছে বাংলাদেশ। সূত্র: চ্যা:অা:

ফেসবুক মন্তব্য
xxx