অল্পের জন্য বেঁচে গেলেন অর্থহীন ব্যান্ডের সুমন!

সিলনিউজ২৪.কমঃ গত ১৭ জুন বাংলাদেশের জনপ্রিয় ব্যান্ড অর্থহীন এর সুমনকে ব্যাংককের শহর সকুমভিতে রাস্তা পার হওয়ার সময় পেছন থেকে একটি মাইক্রোবাস সজোরে ধাক্কা দেয়। এতে তার মুখমণ্ডলের বিভিন্ন অংশ ফেটে ও থেঁতলে যায়।

বিশেষ করে তার চোয়াল ভেঙে যায় ও কানের অংশ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। আর ঘটনার পরপরই স্থানীয়রা দ্রুত তাকে পার্শ্ববর্তী স্যামিতিভেজ সুকুমভিত হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে ১১ ঘণ্টাব্যাপী অস্ত্রোপচার হয় সুমনের শরীরে।

এরপর সুমন গণমাধ্যমকে বলেছেন, আসলে আমি চেকআপের জন্য ব্যাংককে গিয়েছিলাম। স্যামিতিভেজ হাসপাতালেই সেদিন ছোট একটা অস্ত্রোপচার হয়। শুধু ঘণ্টা খানেকের বিষয় ছিল। এরপর আমি বিশ্রাম নিয়ে হোটেলে ফিরছিলাম। এরমধ্যেই গলির ভেতর দিয়ে রাস্তা পার হচ্ছিলাম। হঠাৎ একটি মাইক্রোবাস আমাকে পেছন থেকে ধাক্কা দেয়। একজন মহিলা নাকি ওটা চালাচ্ছিলেন। আমি প্রায় সঙ্গে সঙ্গেই অজ্ঞান হয়ে যাই।’

এছাড়া সুমন পরবর্তী ঘটনা সম্পর্কে বলেছেন, ‘হাসপাতালে পৌঁছার পর আমার এক পরিচিত চিকিৎসক যখন জানতে পারেন, তিনি ছুটে আসেন। তিনিই হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে বিল পরিশোধ করে অস্ত্রোপচার শুরুর নির্দেশ দেন। টানা ১১ ঘণ্টা অস্ত্রোপচার চলে আমার শরীরে। এরপর আমার জ্ঞান ফেরে। ভাগ্য ভালো আমার মেরুদণ্ড ক্ষতিগ্রস্থ হয়নি। কারণ ওটাতে তিনটি ধাতব পাত লাগানো। এটা হলে অবস্থা অবর্ণনীয় হতো।’

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, সুমন এখন ভালো আছেন। আরও একমাস লাগবে সুস্থ হতে। এরপর চেকআপ করে আরও কয়েকটি অস্ত্রোপচার হতে পারে তার শরীরে। তবে সুমন বিষয়টি এখনও পরিবারকেও জানানি।

২০১২ সালের দিকে সুমনের মেরুদণ্ডে প্রথম ক্যানসার হয়েছিল। এরপর মস্তিষ্ক, গলা, পাকস্থলী আর কিডনিতেও ছড়িয়ে যায়। পাকস্থলী মারাত্মক সংক্রমিত হওয়ায় চিকিৎসকরা এটি কেটে ফেলার সিদ্ধান্ত নেন। ক্যানসার আক্রান্ত হওয়ার পর এ পর্যন্ত তার শরীরের ২৪ বারের মতো অস্ত্রোপচার করা হয়েছে।

Facebook Comments