স্পিকারের সাথে সৌদি আরব মজলিশ আশ শুরার স্পিকারের সাক্ষা।

সিলনিউজ২৪.কমঃ  জাতীয় সংসদের স্পিকার ও সিপিএ নির্বাহী কমিটি’র চেয়ারপার্সন ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী এমপির সাথে বৃহস্পতিবার (১১ মে) বাংলাদেশ সফররত সৌদি আরবের মজলিশ আশ শুরার স্পিকার ড. আব্দুল্লাহ বিন মোহাম্মদ বিন ইব্রাহীম আলী আল শেখের নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল তার কার্যালয়ে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেছেন।

প্রতিনিধি দলে অন্যান্যের মধ্যে সৌদি শুরা কাউন্সিলের সদস্য ড. সালেহ এ. এস আলসিহাইব, ড. ইঞ্জিনিয়ার আব্দুল্লাহ আব্দুল আজিজ আল দারাব ও উচ্চ পর্যায়ের কর্মকর্তাবৃন্দ এবং বাংলাদেশে নিযুক্ত সৌদি রাষ্ট্রদূত আব্দুল্লাহ এইচ.এম. আল মুতাইরি এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

সাক্ষাৎকালে তারা বাংলাদেশের মানুষের ধর্মীয় অনুভূতি, সৌদি আরবের প্রতি বিশ্বাস ও আস্থা, বাংলাদেশে ইসলাম ধর্মের চর্চা, বাংলাদেশ বিনির্মাণে সৌদি সরকারের অবদান, সৌদিতে বাংলাদেশী কর্মীদের অবদান, হজ্ব ব্যবস্থাপনা, দু’দেশের মধ্যকার বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক প্রভৃতি বিষয়ে আলোচনা করেন।

স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, ১৯৭১ সালে বাংলাদেশ স্বাধীনতা লাভের পরপরই জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাংলাদেশ ইসলামিক ফাউন্ডেশন গঠন করেছিলেন। এরই ধারাবাহিকতায় বর্তমান সরকার ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে সারাদেশের জেলা-উপজেলায় ইসলাম চর্চা ও ইসলাম প্রসারে কাজ করে যাচ্ছে। বঙ্গবন্ধুর কন্যা ও সুযোগ্য উত্তরসূরী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ইসলামি সংস্কৃতিকে শক্তিশালি করার জন্য ইসলামিক স্টাডিজ, ইসলামিক ইতিহাসসহ বিভিন্ন কারিকুলাম উচ্চ শিক্ষা ব্যবস্থায় অন্তর্ভুক্ত করেছেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ ও সৌদি আরবের ভ্রাতৃত্ববোধ ও বন্ধুত্বের সম্পর্ক অত্যন্ত সুউচ্চ মাত্রায় অবস্থান করছে, যা নিকট ভবিষ্যতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সৌদি আরব সফরের মাধ্যমে আরও সুদৃঢ় হবে।

মজলিশে আশ শুরার স্পিকার ড. আব্দুল্লাহ বিন মোহাম্মদ বিন ইব্রাহীম আলী আল শেখ বলেন, সৌদি আরব ও বাংলাদেশ বন্ধুপ্রতীম দেশ।

তিনি মজলিশ আশ শুরার রীতিনীতি উপস্থাপন করে বলেন, শুরা কাউন্সিলের একশত পঞ্চাশ জন সদস্য যার মধ্যে ত্রিশজন মহিলা সদস্য রয়েছেন। সকল সদস্যগণ বিশেষ করে মহিলা সদস্যগণের সিংহভাগই উচ্চ শিক্ষিত ও পিএইচডি ডিগ্রিধারী। তিনি মনে করেন জ্ঞানী ও মেধাবীরাই সংসদ সদস্য নির্বাচিত হওয়া উচিত। এসময় তিনি মজলিশ আশ শুরা সফরের জন্য স্পিকারের নেতৃত্বে বাংলাদেশ প্রতিনিধিদলকে আমন্ত্রণ জানান।

স্পিকার বলেন, বাংলাদেশ মসজিদের শহর। এছাড়া বাংলাদেশে ইসলামের ব্যাপক চর্চা রয়েছে এবং সরকারও ইসলাম ধর্মের প্রসারে মসজিদ, মাদ্রাসা এমনকি আরবী বিশ্বদ্যিালয়ও নির্মাণের মাধ্যমে ধর্মীয় চর্চার প্রসারে কাজ করে যাচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ৫৬০টি উপজেলায় মডেল মসজিদ নির্মাণের জন্য যৌথ প্রকল্প গ্রহণ করেছেন যেখানে সৌদি সরকারের অনুদান রয়েছে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

এসময় মোঃ বজলুল হক হারুন এমপি, বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের সিনিয়র সচিব ড. মোঃ আবদুর রব হাওলাদারসহ সংসদ সচিবালয়ের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

Facebook Comments