আগামী নির্বাচনে বিএনপি অংশ নিলে জঙ্গি হামলার আশঙ্কা কমবেঃ ওবায়দুল কাদের

সিলনিউজ২৪.কম: আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, জঙ্গি দমনে সরকার বরাবরই কঠোর অবস্থানে রয়েছে। আমাদের সেনাবাহিনীসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও সংস্থা বিভিন্ন স্থানে সফলতার সাথে জঙ্গি দমন করেছে। জঙ্গিদের সাম্প্রতিক যে ঝটিকা অভিযানের প্রস্তুতি দেখা যাচ্ছে, তাতে এটাই প্রমাণিত হয় যে, তারা নিমূর্ল হয়নি। তবে আগামী নির্বাচনে বিএনপি যদি অংশ নেয়, তাহলে জঙ্গি হামলার আশঙ্কা অনেক কমে যাবে।

শুক্রবার (২৮ এ এপ্রিল) দুপুরে নোয়াখালীর কবিরহাট উপজেলার সুন্দলপুরে মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক মরহুম হাজী মোহাম্মদ ইদ্রিছ মিয়া জামে মসজিদ উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের মতবিনিময়কালে তিনি এসব কথা বলেন।

আগামী নির্বাচনে বড় ধরনের জঙ্গি হামলার আশঙ্কা রয়েছে কিনা এ সম্পর্কে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, আগামী নির্বাচনে জঙ্গি হামলার আশঙ্কা নেই এ কথা এ মুহূর্তে আমি বলতে পারছি না। তবে জঙ্গি তৎপরতায় বোঝা যাচ্ছে তাদের আরও হামলার প্রস্তুতি আছে। জঙ্গিরা দুর্বল হলেও নির্মূল হয়েছে এ কথা মনে করার কোনো কারণ নেই।

এ সময় চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী, নোয়াখালী-৪ (সদর-সুবর্ণচর) আসনের এমপি একরামুল করিম চৌধুরী, জেলা প্রশাসক বদরে মুনির ফেরদৌস, পুলিশ মো. ইলিয়াছ শরীফ, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অধ্যক্ষ খায়রুল আনম সেলিম, সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এডভোকেট শিহাব উদ্দিন শাহিন, নোয়াখালী পৌরসভার মেয়র শহিদ উল্লাহ খান সোহেল, চৌমুহনী পৌরসভার মেয়র আক্তার হোসেন ফয়সল, কবিরহাট পৌরসভার মেয়র জহিরুল হক রায়হান ও হাজী মোহাম্মদ ইদ্রিছ মিয়া জামে মসজিদের প্রতিষ্ঠাতা শিল্পপতি হাজী মো. ইব্রাহীম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

ওবায়দুল কাদের হাজী ইদ্রিছ মিয়া জামে মসজিদে জুমার নামাজে উপস্থিত মুসল্লিদের উদ্দেশ্যে বলেন, হাজী মোহাম্মদ ইদ্রিছ মিয়া একজন মুক্তিযোদ্ধা, রাজনীতিবিদ ও দানবীর ছিলেন। তার নামে খুব সুন্দর মসজিদ নির্মাণ করা হয়েছে। মসজিদটি যতো সুন্দর, আমাদের ঈমান ও আখলাক যদি এমন সুন্দর হতো তাহলে সমাজ আরো সুন্দর হতো।

তিনি আরও বলেন, শেখ হাসিনার সরকার সারা দেশের জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে অত্যাধুনিক ৫৬০টি মসজিদ নির্মাণের পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে। এতে ২১ হাজার কোটি টাকা ব্যয় করা হবে। মসজিদগুলোতে ইসলামিক বই, কালচারাল সেন্টার, রিচার্স সেন্টারসহ অনেকগুলো শাখা থাকবে। এ মসজিদ নির্মিত হলে ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা সুন্দরভাবে এ মসজিদগুলোতে নামাজ আদায় ও ধর্মীয় বই-পুস্তক পড়ে জ্ঞান অর্জন করবেন।

Facebook Comments