বিদ্যুৎখাতের উন্নয়নে বাংলাদেশকে ৪৭২ কোটি টাকা ঋণ দিচ্ছে বিশ্বব্যাংক।

সিলনিউজ২৪.কমঃ বাংলাদেশের বিদ্যুৎ চাহিদা পূরণে বিদ্যুৎখাতে ৪৭২ কোটি টাকা বা ৫ কোটি ৯০ লাখ মার্কিন ডলার ঋণ অনুমোদন দিয়েছে বিশ্ব ব্যাংক। ওয়াশিংটনে অবস্থিত সংস্থাটির বোর্ডে এ অনুমোদন দেওয়া হয়। স্কেলআপ ফ্রাসিলিটিজের আওতায় এ ঋণ নিচ্ছে বাংলাদেশ। বৃহস্পতিবার বিশ্ব ব্যাংকের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়।

ঢাকায় নিযুক্ত বিশ্ব ব্যাংকের কান্ট্রি ডিরেক্টর চিমিয়াও ফান বলেন, ক্রমবর্ধমান চাহিদা মেটাতে গত পাঁচ বছরে বাংলাদেশে বিদ্যুৎ উৎপাদন সক্ষমতা প্রায় দ্বিগুণ বেড়েছে। তবে আরও উন্নয়ন প্রয়োজন। এ প্রকল্পটি বাস্তবায়নের মাধ্যমে বিদ্যুৎ খাতের বিভিন্ন সমস্যা চিহ্নিত ও সমাধানে সহায়ক হবে। তাছাড়া পুরো বিদ্যুৎ খাত আধুানকায়নে সহায়ক হবে। ব্যবসা-বাণিজ্য ও বসত বাড়িতে বিদ্যুৎ ব্যবহারে নির্ভরযোগ্যতা বাড়বে।

এতে বলা হয়েছে, বিদ্যুৎ উৎপাদন থেকে সরবরাহ, বিদ্যুৎ ব্যবস্থার দক্ষতা ও নির্ভরযোগ্যতার উন্নয়নে বিশ্ব ব্যাংকের এ অর্থ ব্যয় হবে। বিশ্ব ব্যাংকের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, বাংলাদেশে বিদ্যুৎ বিভ্রাট কমানো এবং বিদ্যুৎ উৎপাদন ব্যয় কমাতে প্রস্তাবিত পাওয়ার সিস্টেম রিলায়েবিলিটি অ্যান্ড ইফিসিয়েন্সি ইমপ্রুভমেন্ট প্রকল্পে বাস্তবায়নে এ অর্থ ব্যয় হবে। এতে বলা হয়, বিদ্যুৎ উৎপাদন ও কার্যক্রমের আধুনিকায়ন, নতুন সফটওয়্যার ও হার্ডওয়্যার স্থাপনের পাশাপাশি সরবরাহ ব্যবস্থার উন্নয়নের মাধ্যমে প্রকল্পের লক্ষ্য অর্জিত হবে। বিদ্যুৎ উৎপাদনে তীব্র কার্বন নিঃসরণকারী জ্বালানির ব্যবহার হ্রাসের মাধ্যমে গ্রীন হাউজ গ্যাস নিঃসরণ কমিয়ে আনাও প্রকল্পের অন্যতম লক্ষ্য।

এটি বিশ্ব ব্যাংকের স্কেল আপ ফ্যাসিলিটিজের আওতায় হওয়ায় ৯ বছরের গ্রেস পিরিয়িডসহ ৩০ বছরের পরিশোধ করতে হবে। তাছাড়া বিজ্ঞপ্তিতে বলা না হলেও বিভিন্ন চার্জ যোগ করে এ সুদের হার ৪ থেকে ৫ শতাংশ পর্যন্ত হতে পারে বলে জানা গেছে।

Facebook Comments