পাকিস্তান দল বাংলাদেশ সফর বাতিল করায় বিস্মিত বিসিবি।

সিলনিউজ২৪.কমঃ দুই বোর্ডের আলোচনার ভিত্তিতে নয়, আইসিসির এফটিপি অনুযায়ী আগামী জুলাইয়ে বাংলাদেশ সফরে আসার কথা ছিলো পাকিস্তানের।কিন্তু হঠাৎ করেই সফরটি অনির্দিষ্টকালের জন্য বাতিল করেছে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি)। সফর স্থগিত করার বিষয়ে বুধবার পাকিস্তানের স্থানীয় গণমাধ্যমের সাথে কথা বলেছেন পিসিবি প্রধান শাহরিয়ার খান।

আর এ খবর শুনে বিস্ময় জানিয়েছে বিসিবির মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস। এটা কেবলই গণমাধ্যমের খবর। পিসিবির পক্ষ থেকে বিসিবিকে অফিসিয়ালি এখনো কিছু জানানো হয়নি বলেও জানান তিনি।

তবে পাকিস্তানের সিদ্ধান্ত নিয়ে মাথা ঘামাচ্ছে না বিাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। পাকিস্তানের অবস্থান যেমনই হোক বিসিবি নিজেদের সিদ্ধান্তেই অনড় থাকবে বলে জানা গেছে।

জালাল ইউনুস বলছেন, তারা চাচ্ছিলো বাংলাদেশ কমপক্ষে দুটি টি-টোয়েন্টি পাকিস্তানে গিয়ে খেলুক। বাকিটা আমাদের এখানে কন্টিনিউ করুক। কিন্তু আমরা চাচ্ছি না ওখানে গিয়ে খেলতে। আমরা আমাদের সূচিতে থাকতে চাই। সম্পুর্ণ সিরিজটা এখানেই খেলতে চাই।

জালাল ইউনুস আরো বলেন, আমরা এখন পর্যন্ত জানি তারা এখানেই আসবে। আমাদের প্রস্তাবিত সূচিটা আমরা তাদের কাছে দিয়ে দিবো। এই মুহূর্তে আমাদের কোনো পরিকল্পনা নেই ওদের ওখানে গিয়ে খেলার। আমরা এখন পর্যন্ত তাদের কাছ থেকে কোনো কিছু পাইনি। এটা মিডিয়ার মাধ্যমে জানতে পেরেছি। সেখানে হয়তো তারা বলেছে, সফর আপাতত স্থগিত করেছে। আমরা এখনো অফিসিয়াল কনফার্ম না।

এই সিরিজটি বাংলাদেশের প্রাপ্য জানিয়ে বিসিবির এই পরিচালক বলেন, আইসিসির একটা সভা ছিলো দুবাইতে। সেখানে পাকিস্তানের সভাপতি ও আমাদের সভাপতির কোনো একটা সময়ে সফর নিয়ে আলাপ আলোচনা হয়েছে। ওরা চাচ্ছে যে আমরা সেখানে গিয়ে সফর করি। কিন্তু আপানারা জানেন যে এই সফরটা আমাদের প্রাপ্য। এফটিপি অনুযায়ি এটা বাংলাদেশের সিরিজ। পাকিস্তানের সিরিজ নয়।

২০১৭ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশে এসে খেলার সম্মতি পাকিস্তানই দিয়ে রেখেছিলো। সিদ্ধান্ত বদলানোয় বিস্মিত বিসিবি, আমরা সত্যিই বিস্মিত। এক মাস আগেও জানতাম তারা এখানে সফর করবে। ২০১৫ সালের পর আমাদের সঙ্গে চুক্তি হয়েছিলো পরের দুটি সিরিজ তারা আমাদের এখানে খেলবে। এটা নিয়ে একটা আর্থিক ইস্যু ছিলো। বিষয়টি তখন নিষ্পত্তি করা হয়েছিলো। তারা বলেছিলো ২০১৭ সাল পর্যন্ত ঢাকাতেই খেলবে। ইএসপিএন ক্রিকইনফো।

Facebook Comments