দরপতনের বৃত্ত থেকে বের হতে পারছে না দেশের পুঁজিবাজার।

সিলনিউজ২৪.কমঃ দরপতন ও লেনদেন খরার বৃত্ত থেকে বের হতে পারছে না দেশের পুঁজিবাজার। সূচকের টানা পতনের সঙ্গে প্রতিদিনই কমছে লেনদেনের পরিমাণ। লেনদেন কমতে কমতে সপ্তাহের দ্বিতীয় কার্যদিবস সোমবার (২৪ এএপ্রিল) প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) লেনদেন ৫শ’ কোটি টাকার নিচে নেমে গেছে।

সোমবার ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স আগের দিনের তুলনায় ২ পয়েন্ট কমে ৫ হাজার ৪৩৫ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। এর মধ্য দিয়ে টানা পাঁচ কার্যদিবস সূচকের পতন ঘটল। আর শেষ ১৪ কার্যদিবসের মধ্যে পতন হয়েছে ১৩ দিনই। এর আগে টানা আট কার্যদিবস পতনের পর গত সপ্তাহের সোমবার কিছুটা ঊর্ধ্বমুখী হয়েছিল পুঁজিবাজার। তবে এক দিনের ব্যবধানেই তা আবার নিম্নমুখী হয়ে পড়ে।

ডিএসইতে এদিন লেনদেন হয়েছে ৪৯৯ কোটি ৯৩ লাখ টাকা। আগের দিন লেনদেন হয় ৫০৬ কোটি ২২ লাখ টাকা। অর্থাৎ লেনদেন আগের দিনের তুলনায় কমেছে ৬ কোটি ২৯ লাখ টাকা। লেনদেন হওয়া প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে ১৭৩টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের দরপতন হয়েছে। অপরদিকে দাম বেড়েছে ১১০টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৪১টির দাম।

টাকার অংকে ডিএসইতে সবচেয়ে বেশি লেনদেন হয়েছে লংকাবাংলা ফিন্যান্সের শেয়ার। এদিন কোম্পানির ২৭ কোটি ৯৪ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। লেনদেনে দ্বিতীয় স্থানে থাকা রিজেন্ট টেক্সটাইলের ২৫ কোটি ৩ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। ২৩ কোটি ৪৫ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেনে তৃতীয় স্থানে রয়েছে ব্রিটিশ আমেরিকা টোবাকো বাংলাদেশ।

লেনদেনে এরপর রয়েছে- বেক্সিমকো, আরএসআরএম স্টিল, প্রিমিয়ার ব্যাংক, এসপিসিএল, গ্রামীণ ফোন, বেক্সিমকো ফার্মা ও ইউনাইটেড পাওয়ার গ্রিড।

অপর পুঁজিবাজার সিএসইতে সিএসসিএক্স সূচক ১৪ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ১০ হাজার ২০০ পয়েন্টে। বাজারটিতে লেনদেন হয়েছে ৩৩ কোটি ৬৯ লাখ টাকার। লেনদেন হওয়া ২৪০টি ইস্যুর মধ্যে দাম বেড়েছে ৬৯টির, কমেছে ১৪১টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৩০টির দাম

Facebook Comments