নিউজটি পড়া হয়েছে 183

সিলেট ওসমানী জাদুঘরে চিত্রাংকন প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ,আলোচনা সভা ও মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত।

সিলনিউজ২৪.কমঃ মহান স্বাধীনতা দিবস এবং আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে “সুন্দর হাতের লেখা” প্রতিযোগিতা এবং মহান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে চিত্রাংকন প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ,আলোচনা সভা ও মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠান বৃহস্পতিবার (২০ এপ্রিল) সিলেট ওসমানী জাদুঘরে অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে সিলেট মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের পরিচালক প্রফেসর মুহাম্মদ হারুনুর রশীদ বলেন- মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উজ্জীবিত হয়ে দেশ থেকে জঙ্গিবাদ নির্মূলের মাধ্যমে  জাতির জনকের কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে।

তিনি বলেন, বঙ্গবীর এম এ জি ওসমানীই একমাত্র বঙ্গবীর উপাধীর মালিক, তাঁর প্রতিদ্বন্ধী কেউ নেই। আগামী বছর বঙ্গবীর এম এ জি ওসমানীর শত’বছর পূর্ণ উপলক্ষে ওসমানী জাদুঘর ও সাংস্কৃতিক বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে যথাযোগ্য মর্যাদায় ১লা সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং পালন করার জন্য তিনি দলমত নির্বিশেষে সকলের প্রতি আহবান জানান।

সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি জি এম জাফর সাদেক (কয়েছ গাজী)’র সভাপতিত্বে ও ওসমানী জাদুঘরের সহকারী কীপার জিয়ারত হোসেনের সার্বিক সহযোগীতায়, সিলেট কল্যাণ সংস্থার প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মোহাম্মদ এহসানুল হক তাহেরের পরিচালনায় পুরস্কার বিতরণ,মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন- সিলেট সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর আতাউর রহমান, সিলেট এম.সি কলেজের সহযোগী অধ্যাপক আঞ্জুমান আরা বেগম, সিলেট জেলা বারের সাবেক সভাপতি এড, এমাদউল্লা শহিদুল ইসলাম শাহিন, ওসমানী স্মৃতি ট্রাষ্ট সিলেট এর ট্রাষ্টি, স্পেশাল পিপি এড. নওশাদ আহমদ চৌধুরী, দুর্নীতি দমন, স্ব-শাসন ও স্ব-উন্নয়ন আন্দোলন বৃহত্তর সিলেট অঞ্চলের আহবায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা এড. মুজিবুর রহমান চৌধুরী, বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা কেন্দ্রীয় কমান্ড কাউন্সিল এর সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা রফিকুল হক, সিলেট সিটি কর্পোরেশনের সাবেক কাউন্সিলর ও সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল খালিক, কাউন্সিলর আজাদুর রহমান আজাদ, বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সিলেট মহানগর কমান্ড এর ইউনিট কমান্ডার ভবতোষ রায় বর্মণ রানা, জাতীয় সাপ্তাহিক বাংলার মাটি পত্রিকার সম্পাদক ও জাতীয় জনতা পার্টির সিলেট জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক আকলিছ আহমদ চৌধুরী, ওসমানী স্মৃতি পরিষদ বাংলাদেশ’র কেন্দ্রীয়  প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি মাহমুদুর রহমান লায়েক,  জাতীয় জনতা পার্টির কেন্দ্রীয় মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক কাজী গোলাম মর্তুজা, সাপ্তাহিক বাংলার মাটি পত্রিকার বার্তা সম্পাদক সুনির্মল সেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা মহি উদ্দিন, ওসমানী স্মৃতি পরিষদ বাংলাদেশ’র গোলাপগঞ্জ উপজেলা শাখার সভাপতি এস.এম. শিপলু, কার্যনির্বাহী সদস্য ফয়সল আহমদ।

অনুষ্ঠানের শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন- ওসমানী জাদুঘরের সহকারী  কীপার মো: জিয়ারত হোসেন খান। তিনি বলেন, জেনারেল ওসমানী এক মহান ব্যক্তিত্ব। তাঁর নেতৃত্বে মহান স্বাধীনতা যুদ্ধের মাধ্যমে আমরা বাংলাদেশ নামক একটি স্বাধীন রাষ্ট্র পেয়েছি। তাঁর অবদান খাটো করে দেখার কোন অবকাশ নেই। তিনি একমাত্র বঙ্গবীর উপধীতে ভূষিত। আগামী বছর তাঁর শত’বার্ষিকী অনুষ্ঠান উদযাপনের জন্য আমি দলমত নির্বিশেষে সকলের সহযোগীতা কামনা করি। শুরুতে কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন- সিলেট সরকারি কলেজের শিক্ষার্থী রাকিবুল হাছান। আলোচনা শেষে প্রধান অতিথি ও বিশেষ অতিথিদের কাছ থেকে মুক্তিযোদ্ধা ও শিক্ষার্থীরা পুরস্কার গ্রহণ করেন।

ফেসবুক মন্তব্য