পদ্মা সেতুর নির্মাণ কাজ যথাসময়ে শেষ হবে। ৪২ শতাংশ কাজ শেষ হয়েছেঃ সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের

সিলনিউজ২৪.কমঃ সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, পদ্মা সেতুর নির্মাণকাজ কাঙিক্ষত লক্ষ্যের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী পদ্মা সেতুর নির্মাণ কাজ যথাসময়ে শেষ হবে।

তিনি বলেন, এ সেতুর নির্মাণকাজের সার্বিক অগ্রগতি হয়েছে ৪২ শতাংশ। জুন মাসের মধ্যেই সেতুর পিলারের ওপর স্প্যান বসানোর কাজ শুরু হবে এবং ১৫ দিন পরপর নতুন স্প্যান বসানোর কাজ চলবে।

রোববার মুন্সীগঞ্জের লৌহজংয়ের কুমারভোগ এলাকায় পদ্মা বহুমুখী সেতু প্রকল্পের পুনর্বাসন কেন্দ্রের ৪টি প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং ৫টি স্বাস্থ্যকেন্দ্রের উদ্বোধনকালে তিনি এসব কথা বলেন।

সেতুমন্ত্রী বলেন, মূল সেতুর ৬২টি পাইল ড্রাইভ সম্পন্ন হয়েছে। এর মধ্যে জাজিরা প্রান্তে ৩৮টি, মাওয়া প্রান্তে ১৪টি এবং ট্রানজিশন পিয়ার ১০টি। সেতুতে মোট ৪১টি স্প্যান বসবে। এর মধ্যে ৭টি স্প্যান (সুপার স্ট্যাকচার) বসানোর কাজ সম্পন্ন হয়েছে। সেগুলো পিলারের ওপর স্থাপনের জন্য মাওয়া প্রান্তে প্রস্তুত রয়েছে।

তিনি আরও জানান, চীনে আরও ১২টি স্প্যান তৈরির কাজ শেষ হয়েছে, শিগগিরই সেগুলো চীন থেকে বাংলাদেশে পৌঁছাবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাহসী উদ্যোগের কারণেই পদ্মা সেতু এখন বাস্তবে রূপ নিচ্ছে।

এ সময় সেতুমন্ত্রীর সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন মুন্সীগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য সাগুফতা ইয়াসমিন এমিলি, সেতু বিভাগের সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম, পদ্মা সেতু প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক মো. শফিকুল ইসলাম, সেনাবাহিনীর ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শাকিল আহম্মেদ ও মুন্সীগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোহাম্মদ ফজলে আজিম প্রমুখ।

উল্লেখ্য, মুন্সীগঞ্জের লৌহজং উপজেলার কুমারভোগ ও যশলদিয়া পুনর্বাসন কেন্দ্রে, মাদারীপুরের শিবচরের বাকেরকান্দি ও শরীয়তপুরের জাজিরা উপজেলার পহৃর্ব নাওডোবা পুনর্বাসন কেন্দ্রে ৪টি প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং এ ৪টি পুনর্বাসন কেন্দ্রসহ শরীয়তপুরের পশ্চিম নাওডোবা পুনর্বাসন কেন্দ্র নিয়ে ৫টি প্রাথমিক স্বাস্থ্য্যকেন্দ্রের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী।

Facebook Comments