বৈদেশিক মুদ্রা বাণিজ্যে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ছয় ব্যাংকের মোট মুনাফা ৮১২ কোটি টাকা

বৈদেশিক মুদ্রা বাণিজ্যে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ছয় ব্যাংকের মোট মুনাফা হয়েছে ৮১২ কোটি টাকা। এ খাত থেকে ২০১৬ সালে ব্যাংকগুলোর মোট মুনাফা এসেছে ৩ হাজার ১৭৬ কোটি টাকা। ২০১৫ সালে মুনাফা ছিল ৩ হাজার ৪৭৬ কোটি টাকা।

এ বিষয়ে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের কর্মকর্তারা বলছেন, ২০১৬ সালে মার্কিন ডলারের দাম স্থিতিশীল ছিল। তবে ইউরোর দামে কিছুটা উত্থান-পতন দেখা গেছে। বাংলাদেশে সব ধরনের আমদানি-রপ্তানি হিসাব ডলারে হওয়ায় ব্যাংকগুলো বড় কোনো সমস্যায় পড়েনি। তবে যেসব ব্যাংক ইউরো ধরে রেখেছিল, তাদের অনেকেই কিছুটা লোকসান গুনেছে। এরপরও বছর শেষে ভালো ব্যবসা হয়েছে ব্যাংকগুলোর।

তারা আরো জানায়, ঋণপত্র খোলার সময় ডলারের একটা নির্দিষ্ট দাম ধরা হয়। বিল পরিশোধের সময় ডলারের দামে উত্থান-পতন হলে ব্যাংকের মুনাফা বা ক্ষতিতে যুক্ত হয়। এ ছাড়া রপ্তানি আয়ের সময়ও ব্যাংকের কিছু মুনাফা হয়। পাশাপাশি প্রতিটি ব্যাংকে নির্দিষ্ট পরিমাণ বৈদেশিক মুদ্রাও জমা থাকে। বছর শেষে এর মুনাফা বা লোকসান হিসাবে যুক্ত হয়।

বৈদেশিক মুদ্রা বাণিজ্যে পুঁজিবাজারের ব্যাংকগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশি মুনাফা করেছে ইসলামি ব্যাংক। তাদের মুনাফা ২৪৮ কোটি টাকা। এর পরে রয়েছে রূপালী ব্যাংক ১৪৮ কোটি টাকা, আল-আরাফাহ্ ইসলামি ব্যাংক ৯৫ কোটি টাকা, মার্কেন্টাইল ব্যাংক ৯৫ কোটি টাকা, সাউথইস্ট ব্যাংক ১১৩ কোটি টাকা এবং ইউনাইটেড কমার্সিয়াল ব্যাংক বৈদেশিক মুদ্রা বাণিজ্যে ১১৩ কোটি টাকা মুনাফা করেছে।

তবে এ খাতে মুনাফায় শীর্ষে রয়েছে জনতা ব্যাংক। তাদের মুনাফা ৩৩৬ কোটি টাকা।

Facebook Comments