বুধবার, ০৫ অগাস্ট ২০২০, ০৫:০১ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
ভয়াবহ বিস্ফোরণে কেঁপে উঠল লেবানন, নিহত ৫০, জাতীয় শোক ঘোষণা ( ভিডিও) ভয়াবহ বিস্ফোরণে কেঁপে উঠল নেবানন, নিহত ৫০, জাতীয় শোক ঘোষণা ( ভিডিও) ভৈরবে কোরবানির মাংস বণ্টনকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের হামলায় একজন নিহত অক্টোবর থেকে নিজেদের তৈরি ভ্যাকসিন গণহারে প্রয়োগের পরিকল্পনা করছে রাশিয়া বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর দেশের জনগণ সব সম্ভাবনা হারিয়ে ফেলে : প্রধানমন্ত্রী নবীগঞ্জে ব্যবসায়ী ইকবালকে অশ্রুসিক্ত ভালবাসায় শেষ বিদায়, এমপি মিলাদ গাজীর শোক আজ থেকে শুরু হচ্ছে ঈদের ছুটি নবীগঞ্জবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন যুক্তরাজ্য বিএনপি সদস্য মতিউর রহমান চৌধুরী হবিগঞ্জ বাংলাদেশ বাউল ফোরাম ইউকে’র কার্যালয় উদ্বোধন ও শিল্পীদের মধ্যে ঈদ উপহার বিতরণ প্রবাসের ঈদ : হেনা বেগম
যুক্তরাজ্যের অনুরোধ প্রত্যাখ্যান করল বাংলাদেশ

যুক্তরাজ্যের অনুরোধ প্রত্যাখ্যান করল বাংলাদেশ

সিলনিউজ ডেস্কঃ   সমুদ্রে ভাসমান ৫ শতাধিক রোহিঙ্গাকে আশ্রয় দিতে বাংলাদেশকে টেলিফোনে অনুরোধ জানিয়েছে যুক্তরাজ্য। সোমবার দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দক্ষিণ এশিয়া ও কমনওয়েলথ বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী লর্ড আহমেদ টেলিফোনে বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে এ অনুরোধ জানান। তবে তাৎক্ষণিক তা প্রত্যাখ্যান করে উল্টো যুক্তরাজ্যকে রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দেয়ার প্রস্তাব দেয় বাংলাদেশ।

গত কয়েকদিন ধরে সমুদ্রে ভাসছে প্রায় ৫ শতাধিক রোহিঙ্গা। কিন্তু নতুন করে বাংলাদেশ আর রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দেবে না বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। এ অবস্থায় কোনো দেশে যেতে না পেরে মানবেতর জীবন যাপন করছে রোহিঙ্গারা।  তবে বরাবরের মতো বাংলাদেশের কাঁধে তাদের চাপিয়ে দিতে পশ্চিমা বিশ্বের বিভিন্ন দেশ তৎপর হয়ে উঠেছে। কিন্তু এ ব্যাপারে বর্তমানে শক্ত অবস্থান নিয়েছে বাংলাদেশ।

টেলিফোনে যুক্তরাজ্যের প্রতিমন্ত্রী লর্ড আহমেদকে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আব্দুল মোমেন বলেন, বাংলাদেশ একটি উন্নয়নশীল দেশ এবং সীমিত সম্পদ থাকা সত্বেও মানবিকতার পরিচয় দিয়ে ইতোমধ্যে ১১ লাখ রোহিঙ্গাকে আশ্রয় দিয়েছে। ৫০০ রোহিঙ্গা সে তুলনায় অতি সামান্য। তারা এখন বাংলাদেশ সীমানায় নেই। মানবিক কারণ দেখিয়ে বাংলাদেশকে রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিতে অনুরোধ করা হলেও এ এলাকার অন্যান্য দেশকে আশ্রয় দিতে বলা হয়নি। যুক্তরাজ্যের রয়েল জাহাজ এসেও তাদের উদ্ধার করে আশ্রয় দিতে পারে বলে যুক্তরাজ্যের প্রতিমন্ত্রীকে ড. মোমেন বলেন। বিশ্বের অন্যান্য দেশের উচিত বাংলাদেশে অবস্থানরত ১১ লাখ রোহিঙ্গাকে তাদের‌ দেশে নিয়ে গিয়ে আশ্রয় দেয়া।

ড. মোমেন আরও বলেন, এ অঞ্চলের অন্যান্য দেশের ওপরও রোহিঙ্গাদের আশ্রয় প্রদানের দায়িত্ব বর্তায়। মিয়ানমারে এখনও মিলিটারি অপারেশন চলছে এবং রোহিঙ্গারা মারা যাচ্ছে। কিছুদিন আগেও তারা বাংলাদেশে প্রবেশের চেষ্টা করেছে। অবশিষ্ট রোহিঙ্গারা আবারও বাংলাদেশে ঢোকার চেষ্টা করতে পারে। তারপরও ইউরোপীয় ইউনিয়নসহ বিভিন্ন দেশ মিয়ানমারে বিনিয়োগ করছে। মানবাধিকার সংগঠনগুলোও এ বিষয়ে সোচ্চার নয়।

তবে বাংলাদেশ যুক্তরাজ্যকে করোনা প্রতিরোধে উপহার হিসেবে চিকিৎসা সামগ্রী পাঠাবে বলে লর্ড আহমেদকে এ সময় অবহিত করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মোমেন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




themesba-zoom1715152249
© ২০১৭ - সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত - সিলনিউজ২৪.কম
ডিজাইন ও ডেভেলপে Host R Web