বৃহস্পতিবার, ২১ নভেম্বর ২০১৯, ০২:৩৮ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
নতুন আইনে অসঙ্গতি থাকলে আলোচনার মাধ্যমে সমাধান করা হবে : ওবায়দুল কাদের নতুন প্রজন্ম যেন জানতে পারে বাঙালি বীরের জাতি : মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি প্রধানমন্ত্রী বিচারপতির ছেলের বিরুদ্ধে ব্যারিস্টার সুমনের রিট ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের কমিটি অনুমোদন : সভাপতি- শওকত, সম্পাদক- টুটুল ছাতকের ভাতগাঁও ইউনিয়ন আ’লীগ সাধারণ সম্পাদক হাসনাত গ্রেফতার গোয়াইনঘাট আ’লীগের যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক হলেন কামরুল হাসান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে বসেছেন বাস, ট্রাক ও পণ্য পরিবহন মালিক-শ্রমিক সমিতির নেতারা ফেঞ্চুগঞ্জে জমে উঠেছে ব্যাচ ভিত্তিক ক্রিকেট টুর্নামেন্ট, টানা দ্বিতীয় জয় নিয়ে শীর্ষে ১১ ব্যাচ হিরন মাহমুদ নিপুকে বালুচর থেকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৯ বিমানে পাকিস্তান থেকে এল পেঁয়াজের প্রথম চালান
জগন্নাথপুরে দুইপক্ষের সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ হয়ে মাদ্রাসা ছাত্রের মৃত্যু

জগন্নাথপুরে দুইপক্ষের সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ হয়ে মাদ্রাসা ছাত্রের মৃত্যু

সিলনিউজঃ সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে দুইপক্ষের বিরোধে এক মাদ্রাসার শিশুছাত্র গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত হয়েছে। এঘটনায় আরও দুইজনকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় জগন্নাথপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

আজ ১৮ অক্টোবর (শুক্রবার) বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে উপজেলা রানীগঞ্জ ইউনিয়নের আলামপুর গ্রামে এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। নিহত শিশুর নাম সাব্বির মিয়া (১০)। সে নবীগঞ্জের কামারগাও নগরকান্দি গ্রামের আব্দুল কাইয়ুমের ছেলে। সে আলমপুর গ্রামের একটি মাদ্রাসার ৩য় শ্রেনীর ছাত্র। শিশু সাব্বির তার মামা ইজাজুল ইসলামের বাড়িতে থাকে পড়াশুনা করত।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, আলমপুর গ্রামের আওয়ামী লীগ নেতা মজনু মিয়া ও তার আপন ভাই খালেদ মিয়ার মধ্যে স্থানীয় কুশিয়ারা নদীর তীরবর্তী বাসষ্ট্যান্ডের মালিকানা জায়গা নিয়ে পূর্ব বিরোধ চলছে। ওই বাসস্ট্যান্ডের ম্যানেজার হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছেল মজনু মিয়ার ছেলে নোমান আহমদ। এ বিরোধকে কেন্দ্রে করে আজ বিকেলে বাসস্ট্যান্ড এলাকায় বৈঠক বসে। বৈঠকে মজনু মিয়া উপস্থিত হননি। বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয় বাসস্ট্যান্ডের ম্যানেজার পদ থেকে মজনু মিয়ার ছেলে নোমানকে তার দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেয়ার সিদ্ধান্ত হলেও এই সিদ্ধান্ত জানাতে বাসষ্ট্যান্ডের শ্রমিক নেতা আলমপুর গ্রামের ইজাজুল ইসমাম, মমরাজ মিয়া গংরা মজনু মিয়ার বাড়িতে যান। এসময় মজনু মিয়ার সঙ্গে তাদের বাকবিতন্ডা সৃষ্টি হয়। একপযার্য়ে সংর্ঘষে জড়িয়ে পড়েন। সংর্ঘষকালে ঘটনাস্থল এলাকায় শিশু সাব্বির দাড়িয়ে ছিল। ওই সময় প্রতিপক্ষের বন্দুকের গুলিতে শিশু সাব্বির নিহত হন। এঘটনায় আলমপুর গ্রামের আকরব আলী (২৭) ও মুজাম্মেল হোসেন (৩০) নামে আরও দুইজন গুলিবিদ্ধ হন। তাদেরকে সন্ধ্যা ৬টার দিকে স্থানীয় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

নিহত শিশুর মামা ইজাজুল ইসলাম জানান, বৈঠকের সিদ্ধান্ত জানাতে আমরা মজনু মিয়ার বাড়িতে গিলে তিনি আমাদেরকে গালিগালাছ করতে থাকেন। এক পয়ার্য়ে প্রতিপক্ষের লোকজনও বন্দুক দিয়ে গুলি করতে থাকেন। এসময় দাড়িয়ে থাকা আমার ভাগ্নে গুলিবিদ্ধ হয়ে ঘটনাস্থলেই নিহত হয়।এ বিষয়ে জানতে মজনু মিয়ার সঙ্গে একাধিকবার মুঠোফোনে যোগাযোগের চেষ্ঠা করেও তাঁর বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

স্থানীয় ইউপি সদস্য বজলু মিয়া জানান, মজনু মিয়া ও তার ভাই খালেদ মিয়ার মধ্যে বাসস্ট্যান্ডের জায়গা নিয়ে পূর্ব বিরোধ চলছে। যার জের ধরে সংঘর্ষে এক শিশুর প্রাণ চলে গেলে।জগন্নাথপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরী বিভাগের দায়িত্বথাকা ডা: শারমিনা আরা আশা জানান, ঘটনাস্থলে শিশুটি মারা গেছে। তার মাথায় ও শরীরের বিভিন্ন অংশে বন্দুরের ছিটা গুলির আঘাতের চিহৃ রয়েছে। এঘটনায় গুলিবিদ্ধ আরও দুইজনকে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

সহকারি পুলিশ সুপার (জগন্নাথপুরের সার্কেল) মাহমুদুল হাসান চৌধুরী রাত ৮টায় জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, বাসষ্ট্যান্ডের ম্যানেজারের পদ নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় এক শিশু নিহত হয়েছে। পরিস্থিত শান্ত রয়েছে।

সুত্রঃ জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকম 

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




themesba-zoom1715152249
© ২০১৭ - সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত - সিলনিউজ২৪.কম
ডিজাইন ও ডেভেলপে Host R Web